Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

দুর্গাপুজোর আর বাকি নেই ৬০ দিনও, এবছরে কি সেই পুরনো ব্যস্ততা ফিরল কুমোরটুলিতে?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

শহরজুড়ে যখন তখন মিলছে বর্ষার দেখা । কখনও ছিঁটেফোঁটা বৃষ্টি আবার কখনও বৃষ্টিতেই জলমগ্ন শহর কলকাতার রাস্তা। কিন্তু এই বর্ষা কেটে গেলেই আসবে শরৎ। বাদল শেষে শরতেই তো দেবীর আগমন। যার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে চলেছে বঙ্গবাসী। বিগত দুবছর করোনা সংক্রমণ সবকিছু উলোট-পালট করে দিয়েছে। অতিমারির জ্বালায় কোথায় পুজো আর কোথায় সেই আনন্দ! কিন্তু এবার যেই না করোনা সংক্রমণ বেশ খানিকটা নিয়ন্ত্রণে সেই আবারও বঙ্গবাসী উৎসাহিত হয়ে উঠেছে দেবীর আগমনকে ঘিরে । এই বছরে সবকিছু ফের গুছিয়ে নেওয়ার পালা। কারণ হাতে তো আর মাত্র ৫৭ দিন । আর তারপরেই বাংলার ঘর আলো করে আসবেন দেবী।

গত দু বছরে এই অতিমারির জেরে বিধি নিয়ম টুকু পালন করে এক প্রকার নমঃ নমঃ করেই সেরে ফেলা হয়েছিল দুর্গাপুজো। রাস্তাঘাটে মানুষজন দেখা গেলেও ভেতরে সব সময়ই সংক্রমণের ভয় কাজ করেছে তাদের। পুজোর রমরমা না থাকায় ভাটা পড়েছিল কুমোরটুলিতেও। কারণ ওই দুটি বছর লকডাউন, সংক্রমণ এই সবকিছু মিলিয়ে হাত গুটিয়ে বসে থাকতে হয়েছিল মৃৎশিল্পীদের। কিন্তু এই বছরে শোনা যাচ্ছে তাদের বসে থাকার ফুরসৎ নেই । কারণ আবারও যে কুমোরটুলিতে পুরনো ব্যস্ততা ফিরে এসেছে। পুজোর তো আর হাতে গোনা কয়েকটা দিন বাকি, তার মধ্যেই সেরে ফেলতে হবে দুর্গা প্রতিমা গড়ার কাজ। কারণ এবার যে রেকর্ড সংখ্যক দুর্গা প্রতিমা পাড়ি দেবে বিদেশে।

আরো পড়ুন : জোকা ইএসআইতে মেডিক্যাল চেকআপে পার্থ-অর্পিতার, আজ পেশ আদালতে

শহরের বিভিন্ন বড় বড় পুজোর বায়না তো পাওয়া গিয়েছেই পাশাপাশি বিদেশ থেকেও তুলনামূলকভাবে অনেকটাই বেশি বায়না পাওয়া গিয়েছে দুর্গা প্রতিমা তৈরির। যার জন্য বছর দুই পরে এবার মুখে হাসি ফুটেছে মৃৎশিল্পীদের। জানা গিয়েছে কুমোরটুলির বিভিন্ন স্টুডিও থেকে এবার মাতৃ মূর্তি যাচ্ছে ইতালি, দুবাই ,জাপান, আমেরিকা, জার্মানির মতো দেশগুলিতেও। তাই সময় নষ্ট করার মত সময় তাদের হাতে নেই। যতটাই খুশি হয়েছেন তাঁরা , ততটাই ব্যস্ততার মধ্যে দিয়ে বর্তমানে সময় কাটছে তাদের।

ইউনেস্কোর আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলার দুর্গাপুজো। আগেও বিদেশে বাঙালিরা দুর্গা পুজো করতেন তবে এই বছরে সেই সংখ্যা খানিকটা বৃদ্ধি পেয়েছে বলেই মনে করছেন মৃৎশিল্পীরা। যার কারণে দুর্গা প্রতিমা তৈরি করার জন্য বিদেশি বাঙ্গালিরাও ভরসা রাখছেন এই কুমোরটুলির মৃৎশিল্পীদের উপরেই। শুধু বিদেশ নয় চলতি বছরে কলকাতার দুর্গাপুজো ঘিরেও নতুন উন্মাদনা দেখা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই বড় বড় পুজো কমিটি গুলি তাদের খুঁটি পুজো সেরে ফেলেছে। শুরু হয়ে গিয়েছে মণ্ডপ তৈরির কাজ। দূর দুরান্ত থেকে মণ্ডপ কর্মীরা এসে গিয়েছেন কলকাতার মাটিতে। প্রথমে মণ্ডপ তৈরি এবং তারপর মণ্ডপসজ্জা।

সব মিলিয়ে আবারও সেই পুরনো ছবি যেন ফুটে উঠেছে। কারণ সারাটা বছর তো বাঙালি এই কয়েকটা দিনের দিকেই তাকিয়ে অপেক্ষায় বসে থাকে। এই দুর্গোৎসব ঘিরেই প্ল্যান-প্রস্তুতি-উৎসাহের অন্ত নেই। তাই চলতি বছরে বিগত দু বছরের সেই ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা নয়, বরং দুবছর পূর্বের সেই পুরনো পুজোর আনন্দ উপভোগ করতে চলেছে বাঙালি। সেই রকম আভাসই মিলছে কুমোরটুলি থেকেও।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories