Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

স্যানিটারি প্যাডে শ্রীকৃষ্ণের মূর্তি! মুক্তির আগেই চরম বিতর্কে ‘মাসুম সওয়াল’ ছবির পোস্টার

1 min read

।।  প্রথম কলকাতা  ।।

সম্প্রতি লীনা মেণিমেকালাই পরিচালিত ‘কালী’ ছবি নিয়ে দেশজুড়ে হয়েছে তুমুল বিতর্ক। সিগারেট হাতে নিয়ে মা কালীর সাজে তোলা সেই ছবির পোস্টার ঘিরে হিন্দুত্ববাদীদের রোষের মুখে পড়েছিলেন পরিচালক। আর এবার সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলো সন্তোষ উপাধ্যায়ও পরিচালিত হিন্দি ছবি ‘মাসুম সওয়াল’(Masoom Sawaal) এর পোস্টার ঘিরে। যেখানে মেয়েদের পিরিয়ড বা ঋতুস্রাব নিয়ে ঘরে উঠেছে ছবির প্রেক্ষাপট। তবে তাতে কোনও আপত্তি না থাকলেও বিতর্কের জন্ম দিয়েছে ছবির পোস্টার। যেখানে স্যানিটারি প্যাডে দেখা যাচ্ছে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের মূর্তি।

আর এই ছবির পোস্টার ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠেছে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দেওয়ার অভিযোগ। যদিও নির্মাতাদের দাবি, ‘কারুর ভাবাবেগে আঘাতের কোনও অভিপ্রায় ছিল না তাঁদের।’প্রসঙ্গত, এই ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী একাবলি খান্না। এক আইনজীবীর চরিত্রে দেখা যাবে তাঁকে। সম্প্রতি, ছবির পোস্টার ঘিরে বিতর্ক প্রসঙ্গে অভিনেত্রী জানান, ছবির পোস্টার ঘিরে কোনও বিতর্ক তৈরি হয়েছে একথা তাঁর জানা নেই। তবে এমনটা হয়ে থাকলে তিনি ক্ষমাপ্রার্থী, পাশাপাশি তাঁর সংযোজন- ‘এই ছবি তৈরির একমাত্র উদ্দেশ্য হল সমাজের একটা ট্যাবুকে ভেঙে দেওয়া।

এই জেনারেশনের মধ্যে কুসংস্কার থাকা অনুচিত। এবং মেয়েদের উপর জোর করে চাপিয়ে দেওয়া সেকেলে রীতিগুলো দূর হোক, এটাই কামনা।’অন্যদিকে পরিচালকের কথায়, ‘ আসলে বিষয়টা মানুষের দৃষ্টিভঙ্গির উফর নির্ভরশীল। এই ছবির বিষয়বস্তুই হল মেনস্ট্রুয়েশন বা পিরিয়ডস। সেখানে স্যানিটারি প্যাড ছবির পোস্টারে তুলে ধরাটাই স্বাভাবিক।’ একাবলি খান্না ছাড়াও এ ছবিতে রয়েছেন নীতাক্ষী গোয়েল, শিশির শর্মা, মধু সচদেবা, রোহিত তিওয়ারি, রামজি বালি, বৃন্দা ত্রিবেদীরা।

ছবির প্রেক্ষাপট কী?

৫ অগাস্ট মুক্তি প্রাপ্ত এই ছবির প্রেক্ষাপট অবর্তিত হবে নিয়তি নামের এক কিশোরীর গল্পকে কেন্দ্র করে। যে ছোটবেলা থেকেই নিজের ভাই হিসেবে চিনে এসেছে গোপালকে। তাঁর সাথেই একসাথে খায়, ঘুমায়। ভাইকে (গোপালের মূর্তিকে) বিছানায় নিয়ে সে গল্প শোনায়, আদর করে নাম রাখে লাড্ডু। এমনকী কখনও কখনও ‘লাড্ডু’কে ব্যাগে করে স্কুলে পর্যন্তও নিয়ে যায়। ছোট বেলাটা এভাবেই কাটলেও সমস্যা আসে মেয়েটির কিশোরী বেলায়। যখন প্রকৃতির নিয়ম অনুযায়ী ঋতুস্রাব শুরু হয় তাঁর।

তখন তাঁর মা, ঠাকুমা সবাই তাঁকে বোঝাতে শুরু করে, মাসের এই কয়েকটা দিন সে অশুচি। তাই গোপালকে সে ছুঁতে পারবে না। পরিবার ও সমাজের বেঁধে দেওয়া এই নিয়ম মানতে নারাজ নিয়তি। পরিবারের এমন নিয়মের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ায় সে। শুরু হয় বিতর্ক। যার জল গড়ায় আদালত পর্যন্ত। খুদের পাশে এসে দাঁড়ায় এক মহিলা আইনজীবী (একাবলি)। তাঁর হয়ে আদালতে সওয়াল করেন তিনি। তবে এমন বিতর্কে শেষ রায় কী দেবে আদালত? সেটাই এখন দেখার। আজ তথা ৫ অগাস্ট পেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে এই ছবি।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories