Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

শিক্ষার মাধ্যম মাতৃভাষা নাকি ইংরেজি? NCERT নতুন স্কুল পাঠক্রম তৈরিতে চাইল মতামত

।। প্রথম কলকাতা ।।

শিক্ষার মাধ্যম হিসেবে কোন ভাষা হবে তা প্রত্যেক শিশুর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে একটু ভুল সিদ্ধান্ত হলেই বড়সড় প্রভাব পড়তে পারে শিক্ষার্থীদের উপর। ভাষার মাধ্যমেই তারা জ্ঞান অর্জন করে। আর সেই ভাষা নির্বাচনে যদি ভুল হয় তাহলে তাদের বিদ্যালয়ের শিক্ষা লাভ সম্পূর্ণ নাও হতে পারে। নতুন জাতীয় শিক্ষানীতির পর স্কুল শিক্ষার জন্য নতুন পাঠ্যক্রম তৈরি করার তোড়জোড় চলছে। আর এসবের আগে একটি কাঠামো তৈরি করতে হবে। যেটি সম্পর্কে সাধারণ মানুষের কাছে মতামত জানতে চেয়েছিল ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ এডুকেশনাল রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিং ।

এনসিইআরটি এই বিষয়ে প্রায় দশটি প্রশ্ন রেখেছিল। যেখানে জানতে চাওয়া হয়েছিল স্কুলে শিশুদের অভিভাবকরা মাতৃভাষায় পড়াতে চান নাকি ইংরেজি, সংস্কৃত ইত্যাদি ভাষায়। সাধারণ মানুষদের পাশাপাশি অন্য বিদ্যালয় গুলিতেও পাঠদানকারী শিক্ষকদের কাছে এই প্রশ্ন রাখা হয়। এছাড়াও গুরুত্ব দেওয়া হয় কীভাবে এই পাঠ্যক্রমকে শিক্ষার্থীদের জন্য যথোপযুক্ত করে তোলা যায়।

এনসিআরটি ইন্টারনেট মিডিয়া এবং অনলাইনের মাধ্যমে ন্যাশনাল কারিকুলাম ফ্রেমওয়ার্ক সম্পর্কে সাধারণ মানুষের কাছে মতামত জানতে এই প্রচার শুরু করে। ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইমেইল, ইনস্টাগ্রামের মতো প্রভৃতি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এবং সরকারি সাইটের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের কাছে প্রশ্ন করা হয়। এছাড়াও সেই প্রশ্নের তালিকায় রয়েছে স্কুলে শিশুরা কোন বিষয়গুলি পড়তে চান। সেক্ষেত্রে তৃতীয় থেকে পঞ্চম শ্রেণীর স্তরে বিকল্প হিসেবে দেওয়া হয়েছিল ভাষা,পরিবেশ অধ্যায়ন, গণিত, কলা, কারুশিল্প, খেলাধুলা, সামাজিক বিজ্ঞান, যোগ, স্বাস্থ্য প্রভৃতি।

আরও পড়ুন : ইংরেজদের রাতের ঘুম কেড়েছিল এই বীর রমণীরা, সহ্য করেছেন পশুর মত অত্যাচার

সেই প্রশ্ন তালিকায় আরেকটি প্রশ্ন ছিল, শিক্ষাকে ভবিষ্যৎ চাহিদা ও দক্ষতা ভিত্তিক করতে গেলে কি করতে হবে। এক্ষেত্রে প্রস্তাবিত বিকল্পগুলির মধ্যে রয়েছে শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানের ক্ষমতা বিকাশ করা, বহু দক্ষ শিক্ষার্থীদের এক্সপোজার প্রদান করা, স্কুলগুলিতে বৃত্তিমূলক শিক্ষা বৃদ্ধি করা, স্কুল এবং শিল্পের সাথে সংযোগ রাখা প্রভৃতি। এই বিষয়ে সারা দেশ থেকে এইভাবে সাধারণ মানুষের মতামত নেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যেই প্রায় ২ লক্ষের বেশি পরামর্শ পাওয়া গিয়েছে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories