Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

প্রেমের টানে ভিনদেশের মাটিতে ভারতীয় যুবক, প্রেমিকার মনে বাসা বেঁধেছে অন্য পুরুষ

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

প্রেমিকের অসহায় দুই চোখ ভিনদেশের মাটিতে পাগলের মত খুঁজছে ভালোবাসার মানুষকে। ফোনের গ্যালারিতে থাকা প্রেমিকার ছবি দেখলেই চোখ দিয়ে জল পড়ছে। তিন বছরের প্রেমের সম্পর্ক, কত স্মৃতি , কত ভালোবাসার কথা অথচ প্রেমিকা ধরা দিতে চাইছেন না প্রেমিকের কাছে। প্রেমিকাকে একবার চোখের দেখা দেখবেন বলে ভারতের তামিলনাড়ু থেকে প্রেমকান্ত ছুটে যান বাংলাদেশের বরিশালে। সেখানেই প্রেমিকার সন্ধানে রাস্তাঘাটে পাগলের মত ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তার জন্য কখনো বা খেতে হয়েছে মার আবার কখনো বা রাত কাটাতে হয়েছে জেলে। তামিলনাড়ুর প্রেমকান্তের এই প্রেমের গল্প হারিয়ে দেবে ছকে বাঁধা সিনেমার প্লটকে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তামিলনাড়ুর প্রেমিকান্তের নাচ দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন বাংলাদেশের বরগুনার তালতলীর উপজেলার এক কিশোরী। তারপর ফেসবুকেই দুজনের মধ্যে পরিচয়। একে অপরের ভিডিওতে লাইক কমেন্ট করতে করতে প্রেমকান্তের মনে পাকাপোক্তভাবে জায়গা করে নেন ওই কিশোরী। তারপর দুজনের মধ্যে ভার্চুয়ালি গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক। তিন বছর দুজনেই চুটিয়ে প্রেম করেছেন । ভাগ করে নিয়েছেন নিজেদের ভালো লাগা খারাপ লাগা গুলিকে। দুই পরিবারের মধ্যেও বেশ ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

করোনা কাল কাটিয়ে তামিলনাড়ুর প্রেমকান্তের ইচ্ছা হয় আর ভিডিও কলে নয়, এইবার ভালোবাসার মানুষটিকে তিনি চোখের সামনে একটু দেখবেন । তাই পাগলের মতো ছুটে যান বাংলাদেশে। তারপর যা ঘটে তা কি আদৌ ওই যুবকের প্রাপ্য ছিল?কখনো বৃষ্টি, আবার কখনো রোদ মাথায় করে তিনি বাংলাদেশের রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছেন, প্রেমিকাকে একবার দেখবেন বলে। অবশেষে ২৪শে জুলাই তাদের একটা রেস্টুরেন্টের দেখাও হয়। তারপরেই শুরু হয়ে যায় আসল ট্র্যাজেডি। মন ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে যায় প্রেমকান্তের। ২০১৯ সাল থেকে তাদের সম্পর্ক।

বাংলাদেশে এসে একদিন দেখা করার পরেই তিনি জানতে পারেন তার প্রেমিকার তলে তলে অপর এক যুবকের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে। অথচ তিনি তা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি। বিষয়টি এখানেই থেমে থাকেনি। ওই কিশোরীর নতুন প্রেমিক চয়ন হালদার রীতিমত প্রেমকান্তের উপর নানান ধরনের অত্যাচার শুরু করেন। হঠাৎ করেই ওই কিশোরী এবং তার পরিবার প্রেমকান্তের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেয় । এমনকি ওই কিশোরীর নতুন বয়ফ্রেন্ড প্রেমকান্তকে মারধর করে ছিনিয়ে নেয় টাকা-পয়সা। প্রেমকান্ত অসহায় হয়ে সেই সমস্ত সিসিটিভি ফুটেজ পুলিশকে দেখালেও প্রশাসনের কোন টনক নড়েনি। উপরন্তু তাকে থাকতে হয়েছে বরিশাল মেট্রো থানা পুলিশের হেফাজতে।

ভালোবাসার মানুষটিকে শুধুমাত্র একটু চোখের দেখা দেখবেন বলে দুদিন জেলে রাত কাটিয়েছেন উপরন্তু মার খেতে হল, কাছে নেই টাকা পয়সা। পুলিশ প্রেমকান্তের অভিযোগে একেবারেই পাত্তা দেয়নি, এতকিছুর পরেও প্রেমকান্ত বিশ্বাস করছেন, যদি পুনরায় একটুর জন্যও তার প্রেমিকার সঙ্গে দেখা হয় তাহলে হয়তো আবার দুটো মন জোড়া লাগতে পারে। প্রেমকান্তের শুধু ফোনের গ্যালারি নয় তার মনেও সেই কিশোরীর অসংখ্য ছবি গেঁথে রয়েছে। অথচ সেই প্রেমিকার মনে বাসা বেঁধেছে অন্য পুরুষ।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories