Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

সাবধান! প্রতিদিন স্নানের সময় লুফা ব্যবহার করছেন? শরীরে বাসা বাঁধছে ভয়ঙ্কর রোগ

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

অন্যান্য ঋতুর তুলনায় গরমের সময় মানুষ বেশি পছন্দ করেন ভালো করে সাবান দিয়ে স্নান করতে। তাই মানুষের স্নানঘরে অনায়াসে জায়গা করে নেয় লুফা (Loofah)। এছাড়াও অনেকে ত্বক পরিষ্কার করতে ব্যবহার করেন ছোবড়া জাতীয় প্রাকৃতিক উপাদান, যাকে অনেকে প্রচলিত ভাষায় বলে থাকেন জালি। বহু সংস্থা আছে যারা সাবানের সঙ্গে লুফা বিনামূল্যে দিয়ে থাকেন। কিন্তু প্রশ্ন হল, এই লুফা আদৌ কি শরীরের জন্য উপকারী? কিংবা এই লুফার কারণেই শরীরে বাসা বাঁধছে না তো কোন জটিল রোগ?

বহু ডার্মাটোলজিস্ট লুফা কিংবা এই জালির অতিরিক্ত ব্যবহার এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেন। কারণ এক্ষেত্রে ত্বকের নানান ধরনের সংক্রমণ দেখা দিতে পারে। আসলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই লুফাতে থাকে প্লাস্টিকের উপাদান, যা ত্বককে এক্সফোলিয়েট করে। লুফা ব্যবহারে নিঃসন্দেহে ত্বক পরিষ্কার হয় কিন্তু পাশাপাশি হতে পারে নানান ক্ষতি। এটির অত্যাধিক ব্যবহার ত্বকে জ্বালাপোড়া সৃষ্টি করে।

এটি ব্যাকটেরিয়ার সবচেয়ে বড় উৎস, যার মধ্যে রয়েছে E. coli, Pseudomonas aeruginosa, Staphylococcus, Streptococcus, পাশাপাশি ছত্রাক যা ত্বকের নানাভাবে ক্ষতি করতে পারে। আপনিও যদি বাড়িতে ফাইবার কিংবা প্লাস্টিকের উপাদানে তৈরি লুফা প্রতিদিন স্নানের সময় ব্যবহার করেন তাহলে এই অভ্যাসটি বদল করার চেষ্টা করুন।

আসলে লুফার ব্যবহারের আগে কিংবা পরে একটি আদ্র পরিবেশে ঘন্টার পর ঘন্টা থাকে। যার কারণে এর মধ্যে জমে যায় অণুজীব। বহু মানুষ স্নানের আগে সেই অণুজীবের দিকে সতর্ক হন না। আবার অনেকেই আছে লুফা না ধুয়েই আবার ব্যবহার করেন। যার কারণে লুফাতে থাকা অনুজীবগুলি ত্বকের মধ্যে প্রবেশ করে সংক্রমণ ঘটায়।

আপনার ত্বকে থাকা মৃত কোষগুলি এবং ব্যাকটেরিয়া গুলি লুফাতে জমা হয়। আপনি যতবার সেটি ব্যবহার করবেন ততবারই আপনার শরীর ব্যাকটেরিয়া সংস্পর্শে আসবে। শুধু তাই নয়, লুফার মধ্যে ওই ব্যাকটেরিয়া গুলি আরো বেশি পরিমাণে বৃদ্ধি পায়।

সংক্রমণ এড়াতে কী করবেন?

অনেকের লুফার ব্যবহার ছাড়া একেবারেই চলে না। এক্ষেত্রে আপনি বেশ কিছু উপায় ব্যবহার করতে পারেন।

•লুফা বাথরুমের ছাওয়ায় রেখে দেবেন না।
• সংক্রমণ থেকে বাঁচতে রোদে যেমন জামা কাপড় শুকাতে দেন তেমনই লুফা শুকিয়ে নেবেন।
•এমন জায়গায় এটিকে রাখতে হবে যেখানে পর্যাপ্ত পরিমাণে আলো বাতাস পাওয়া যায়। তাহলে সহজে লুফার মধ্যে ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া বাসা বাঁধতে পারবে না।
•যদি দেখেন যে লুফার গন্ধ কিংবা রং পরিবর্তন করতে শুরু করেছে তাহলে অবিলম্বে তা পরিবর্তন করুন।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories