Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

সংক্রমিত হওয়ার পর মৃত্যুর কারণ যাই হোক না কেন দায়ী থাকবে করোনা! রায় হাইকোর্টের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

কোন ব্যক্তি যদি একবার করোনায় সংক্রমিত হন এবং তারপর যদি কোন কারণে তার মৃত্যু হয়, সেক্ষেত্রে অন্য কোন রোগকে মৃত্যুর কারণ হিসেবে বিবেচনা করা হবে না। এক্ষেত্রে কারণ হিসেবে গুরুত্ব পাবে করোনা। এলাহাবাদ হাইকোর্ট একটি গুরুত্বপূর্ণ রায় দেওয়ার সময় এমনটাই জানিয়েছে।

একবার কোনো রোগী যদি করোনায় সংক্রমিত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। সেক্ষেত্রে তার মৃত্যুর কারণ যাই থাকুক না কেন, অন্য কোন রোগ মৃত্যুর কারণ হিসেবে বিবেচিত হবে না। এমনকি হার্ট ফেলিওর হলেও করোনাকে গুরুত্ব দেওয়া হবে । কিংবা যদি অন্য কোন অঙ্গ বিকল হয়ে যায় সেক্ষেত্রেও শুধুমাত্র করোনার কারণে মৃত্যু বলে গণ্য করা হবে। বিচারপতি এ আর মাসুদি এবং বিক্রম ডি চৌহানের ডিভিশন বেঞ্চ আবেদনকারী কুসুম লতা যাদব এবং আরো কয়েকজনের দায়ের করা রিট পিটিশন গুলি স্বীকার করে এমন রায় দিয়েছে।

হাইকোর্ট রায়ে জানিয়েছে, রাজ্য সরকারকে ৩০ দিনের মধ্যে করোনায় সংক্রমিত মৃত ব্যক্তিদের নির্ভরশীলদের এক্স-গ্রেশিয়া পেমেন্ট দিয়ে দিতে হবে। যদি ৩০ দিনের মধ্যে এই টাকা পরিশোধ না করা হয় সেক্ষেত্রে গুনতে হবে সুদ। এই এক্স-গ্রেশিয়া পেমেন্ট বলতে বোঝায় বীমা, কর্মসংস্থান কিংবা আইনে এককালীন অর্থ প্রদানের মাধ্যমে কোন দাবি নিষ্পত্তির একটি উপায়। এই অর্থ তখনই প্রদান করা হয় যদি প্রাপক এটির যোগ্য হয়ে থাকেন। হাইকোর্টের রায় অনুযায়ী, প্রত্যেক আবেদনকারীকে অর্থাৎ যাদের দাবি অনুমোদিত হয়েছে তাদের ২৫ হাজার টাকা করে দিতে হবে।

এই আবেদনকারীরা ২০২১ সালে জুন মাসে সরকারি আদেশের ১২ নম্বর ধারাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। আসলে যেখানে বলা হয়েছিল ৩০ দিনের মধ্যে করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তির মৃত্যু ঘটলে তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। কিন্তু আবেদনকারীরা যুক্তি দেন, এক্ষেত্রে ৩০ দিনের সীমাবদ্ধতা করার কোন যুক্তিসঙ্গত কারণ নেই। কারণ করোনায় সংক্রমিত হওয়ার ৩০ দিন পরেও ব্যক্তির মৃত্যু ঘটতে পারে। করোনাকালে দেখা গিয়েছে বহু মানুষ পরবর্তীকালে ফুসফুস এবং হৃদপিন্ডের নানান সমস্যায় ভুগেছেন। এছাড়াও শরীরের বাসা বেঁধেছে নানান জটিল রোগ। যার কারণে অনেকের মৃত্যু হয়েছে। এক্ষেত্রে ৩০ দিনের সীমাকে সম্পূর্ণ অযৌক্তিক বলে মনে করেছেন আবেদনকারীরা।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories