Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রাজেন্দ্র প্রসাদ থেকে দ্রৌপদী মুর্মু, জেনে নিন ভারতের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ইতিহাস

।। প্রথম কলকাতা।।

ভারতের ১৫তম রাষ্ট্রপতি হিসাবে নির্বাচিত হলেন দ্রৌপদী মুর্মু। শুধু তাই নয় তিনি ভারতের প্রথম আদিবাসী মহিলা রাষ্ট্রপতি। রাষ্ট্রপতি হলেন ভারতের প্রথম নাগরিক। শুধু তাই নয় তিনি রাষ্ট্র প্রধাও। রাষ্ট্রপতি পদ ছাড়াও তিনি ভারতের আইনবিভাগ, শাসনবিভাগ ও বিচারবিভাগের সকল শাখার আনুষ্ঠানিক প্রধান এবং ভারতের সামরিক বাহিনীর সর্বাধিনায়ক। রাষ্ট্রপতি চাইলে যে কোন রাজ্যের সরকার ভেঙে দিতে পারেন। প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতা চ্যুত করতে পারেন।

কোন বিল তার সই ছাড়া পাশ হবে না। দ্রৌপদীর আগে আরও ১৪ জন ব্যক্তি এই পদ অলংকৃত করেছেন। তার মধ্যে আছেন প্রতিভা পাটিলও। তিনি ছিলেন ভারতের প্রথম মহিলা রাষ্ট্রপতি। বলাই বাহুল্য একজন মহিলা হিসাবে এই আসনকে তিনি আরও গৌরবান্বিত করেছিলেন।

ভারতে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ইতিহাস –

১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি ভারতের প্রথম রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন রাজেন্দ্র প্রসাদ। কংগ্রেস প্রার্থী হিসাবে জয়ী হয়েছিলেন তিনি। রাষ্ট্রপতি হিসাবে তার মেয়াদ ছিল দীর্ঘ ১২ বছরের। তার আমলে উপরাষ্ট্রপতি ছিলেন ডক্টর সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণন। এখনও অবধি একমাত্র রাজেন্দ্রই টানা ২ বার রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন। তার প্রতিপক্ষ ছিলেন এক বাঙালি, কৃষ্ণকুমার চট্টোপাধ্যায় সহ মোট চারজন।

এরপর ১৯৬২ সালে এই আসনে বসেন ডক্টর সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণন। তার ৫বছরের কার্যকালে উপরাষ্ট্রপতি ছিলেন জাকির হুসেইন। ডক্টর সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণন স্বাধীন ভাবেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। সেবার তিনি ৫,৫৩,০৬৭টি ভোট পেয়েছিলেন। তারপর ১৯৬৭ সালে আগের উপরাষ্ট্রপতি জাকির হুসেন নির্বাচিত হন রাষ্ট্রপতি হিসাবে। যদিও জাকির মাত্র ১বছর ৩৫৫ দিনের জন্য রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব সামলেছেন। তখন উপরাষ্ট্রপতি ছিলেন বরাহগিরি ভেঙ্কট গিরি। জাকিরও নির্দল ছিলেন।

এরপর ১৯৬৯ সালে মাত্র ৭৮ দিনের জন্য রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন বরাহগিরি ভেঙ্কট গিরি। তারপর মাত্র ৩৫ দিনের জন্য মহম্মদ হিদায়াতউল্লাহ রাষ্ট্রপতি হন। এরপর ১৯৬৯ সালের ২৪ আগস্ট ফের দায়িত্বে আসেন বরাহগিরি ভেঙ্কট গিরি। ১৯৭৪ সাল অবধি টানা ৫বছর এই দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। তখন উপরাষ্ট্রপতি ছিলেন গোপাল বিনয় পাঠক। ইতিহাস জানান দেয় বারবার রাষ্ট্রপতি পদ নিয়ে টালমাটাল অবস্থার সম্মুখীন হয়েছে ভারত। মাত্র ২বছর ১৭১দিনের জন্য ১৯৭৪ সালে প্রেসিডেন্ট হন ফখরুদ্দিন আলি আহমেদ।

১৯৭৭ সালে ১৭৪দিনের জন্য রাষ্ট্রপতি হলেন বসপ্পা ধনপ্পা জত্তী। অবশেষে ১৯৭৭সালে ফের ৫বছরের জন্য রাষ্ট্রপতি পেল ভারত। দায়িত্বে এলেন নীলম সঞ্জীব রেড্ডি। জনতা পার্টির প্রার্থী ছিলেন তিনি। তার আমলে উপরাষ্ট্রপতি হলেন বসপ্পা ধনপ্পা জত্তী এবং মহম্মদ হিদায়াতউল্লাহ।

এরপর ১৯৮২ সালে ভারতের রাষ্ট্রপতি হলেন জৈল সিং। পুরো মেয়াদ শেষ করেন তিনি। মহম্মদ হিদায়াতউল্লাহ এবং রামস্বামী ভেঙ্কটরমণ দায়িত্ব সামলেছেন তখন উপরাষ্ট্রপতি হিসাবে। এরপর ১৯৮৭ সালে রামস্বামী ভেঙ্কটরমণ প্রেসিডেন্ট হন, তার আমলে উপরাষ্ট্রপতি হলেন শঙ্কর দয়াল শর্মা। ১৯৯২ সালে এই শঙ্কর দয়াল শর্মা হলেন ভারতের প্রথম নাগরিক।

মূলত এই সময় থেকেই স্থিতাবস্থা ফেরে রাষ্ট্রপতি পদে কারণ এরপর সবাই ৫বছরের কার্যকাল শেষ করেছেন। ১৯৯৭ সালে কে আর নারায়ণন শর্মা হলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি। উল্লেখ্য বিষয় ১৯৮৭ থেকে ১৯৯৭সাল অবধি পুরো সময়ে সবাই কংগ্রেসের তরফে রাষ্ট্রপতি ছিলেন। ২০০২সালে ভারত পেয়েছিল তার অন্যতম রাষ্ট্রপতিকে, তার নাম এপিজে আবদুল কালাম। সেই সময় উপরাষ্ট্রপতি হয়ে তাকে সহায়তা করেন ভৈরন সিং শেখাওয়াত।

২০০৭সালে ভারতের রাষ্ট্রপতি নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল।কারণ ভারত পেয়েছিল তার প্রথম মহিলা রাষ্ট্রপতিকে, তার নাম প্রতিভা পাটিল। বলাই বাহুল্য এই নাম রাষ্ট্রপতির ইতিহাসে চিরস্মরণীয়। ২০১২সালের নির্বাচন বাঙালিদের জন্য অত্যন্ত গর্বময় ছিল। কারণ প্রণব মুখোপাধ্যায় রাষ্ট্রপতি হয়ে উজ্জ্বল করেন বাংলার মুখ। প্রতিভা এবং প্রণবের আমলে উপরাষ্ট্রপতি ছিলেন মহম্মদ হামিদ আনসারি।

২০১৭ সাল থেকে রাষ্ট্রপতি ছিলেন রামনাথ কোবিন্দ, তিনি ছিলেন বিজেপি পক্ষের প্রার্থী, তার আমলে উপরাষ্ট্রপতির দায়িত্ব নিলেন ভেঙ্কাইয়া নাইডু। গতকাল থেকে ফের এক মহিলা হলেন দেশের রাষ্ট্রপতি। অনেক বছর অপেক্ষার ফের এক মহিলা এই পদে এবার দেখার বিষয় এটাই তিনি প্রতিভার মত ‘প্রতিভা’ নিয়ে দেশ সামলাতে পারেন কি না!

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories