Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

শিনজোর খুনের প্রসঙ্গ তুলে কেন্দ্রের অগ্নিপথ প্রকল্পকে ঘিরে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ কুণালের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

গতকাল জাপানের নারা শহরে এক জনসভায় বক্তব্য রাখার সময় আততায়ীর গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন জাপানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। এই ঘটনার সঙ্গে কেন্দ্রের অগ্নিপথ প্রকল্পকে জুড়ে দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের তীব্র সমালোচনায় মত্ত হল রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল। তৃণমূলের দলীয় মুখপাত্র জাগো বাংলায় এক প্রতিবেদনে দাবি করা হল, জাপানের প্রাক্তন সেনার গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন জাপানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। আর এই ইস্যুতেই অগ্নিপথ প্রকল্পকে ঘিরে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ।

আজ তৃণমূলের মুখপাত্র জাগো বাংলায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে, যার শিরোনাম হল ‘শিনজোর খুনে অগ্নিপথের ছায়া’। যে প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, “শিনজোর মৃত্যুতে অগ্নিপথ নিয়ে মানুষের ক্ষোভের কারণ আরও দৃঢ় হল। তার কারণ, হত্যাকারী তেতসুয়া বিনা পেনশনে জাপানের সেনায় কাজ করত। তাৎপর্যপূর্ণ হল, একই ভাবে অগ্নিপথ প্রকল্পে সেনা নিযুক্তি করতে চাইছে কেন্দ্র। যা নিয়ে উত্তাল হয় গোটা দেশ। অগ্নিপথে মাত্র সাড়ে ৪ বছরের জন্য সেনায় কাজ করার সুযোগ মিলবে। অবসরের পর থাকবে না পেনশন কিংবা অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা। তেতসুয়ার ক্ষেত্রেও একই ঘটনা।

জাপানের মেরিটাইম সেলফ ডিফেন্সের প্রাক্তন সদস্য সে। তিন বছর কাজ করার পর চাকরি যায়। তারপর থেকে প্রায় কোনও কাজই সে পায়নি। নিরাপত্তাহীনতা এবং চাকরি যাওয়ার কারণে শিনজোর উপর তার ক্ষোভ ছিল বলে জানিয়েছে।”এবার জাগো বাংলায় প্রকাশিত এই প্রতিবেদনের সূত্র ধরেই অগ্নিপথ প্রকল্পের তীব্র সমালোচনা করলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তিনি জানান, “শিনজো আবের খুনিও চুক্তিভিত্তিক নিরাপত্তা কর্মী ছিলেন। পেনশন ও অন্য সুবিধা না পেয়ে ডিপ্রেশনে ভুগছিলেন। অবসরপ্রাপ্ত অগ্নিবীররাও ভুগতে পারেন ডিপ্রেশনে। সামরিক প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবকদের বিপথে চালনা করতে পারে অশুভ শক্তি।”

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories