Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

লক্ষ্যপূরণে ব্যর্থ অরবিন্দ কেজরিওয়াল, ৪ হাজারের জায়গায় রাস্তায় নামলো মাত্র ২৭৯ ইলেকট্রিক অটো

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

পরিবহণ মাধ্যমে ইলেকট্রিক গাড়ির সংখ্যা বাড়াতে একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সরকার।
তবুও নির্দিষ্ট লক্ষ্যপূরণে ব্যর্থ দিল্লি প্রশাসন। চলতি বছরের শুরুতে দিল্লি সরকারের তরফে রাজপথে ৪ হাজার ইলেকট্রিক অটো রিকশা নামানোর লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়। মোট ৪,২৬১ টি ইলেকট্রিক অটো বরাদ্দের জন্য কম্পিউটারাইজড ড্র অনুষ্ঠিত হয় ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে। এই রেজিস্ট্রেশন করার শেষ তারিখ রাখা হয় ৩১ জুলাই।

কিন্তু কেন্দ্রীয় সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রকের গাড়িবহন পোর্টালের তথ্যে দেখা গেছে, ৪ হাজারের জায়গায় মাত্র ২৭৯ টি ইলেকট্রিক অটো নথিভুক্ত হয়েছে পোর্টালে। যা লক্ষ্যমাত্রার ১০ শতাংশেরও কম। বাহন পোর্টাল অনুসারে, যে ২৭৯ টি ই-অটো বিক্রি হয়েছে তার মধ্যে ২১৫ টি Piaggio সংস্থার এবং বাকি ৬৪ টি Mahindra Reva ইলেকট্রিক গাড়ি।

কি জানাচ্ছেন অটো চালকরা?

এই প্রসঙ্গে অটো-রিক্সা ইউনিয়নের দাবি, ইলেকট্রিক যানবাহনগুলির উপর অত্যধিক সুদের হার চাপানো হয়েছে। যা তাদের সামর্থ নয়। পাশাপাশি ইলেকট্রিক অটো সম্পর্কে ভুল ধারণার ফল কম নথিভুক্তকরণ। ইউনিয়ন সভাপতির মতে ইলেকট্রিক অটো নিয়ে যে ভুল ধারণা সৃষ্টি হয়েছে সেই বিষয়ে আলোকপাত করা উচিত সরকারের।

অটো রিকশা ইউনিয়ন ‘চালক শক্তির’ সভাপতি রাকেশ আগরওয়াল বলেন, সিঙ্গেল-উইন্ডো সুবিধার নামে (অর্থাৎ এক ছাতার তলায় সমস্ত প্রক্রিয়া) দিল্লি সরকার সমস্ত দায়িত্ব যেমন বিক্রি থেকে অর্থায়ন, বীমা সংক্রান্ত পরিষেবা সবকিছু কনভারজেন্স এনার্জি সার্ভিসেস লিমিটেডের (CESL) হাতে তুলে দিয়েছে। এই সংস্থাটি দুটি মাত্র দুটি প্রাইভেট ফাইন্যান্সারের সাথে যুক্ত যাদের সুদের হার ১৫ শতাংশ, যা প্রাইভেট কারের জন্য যে পরিমাণ অর্থ প্রদান করা হয় তার দ্বিগুণ।

কিন্তু দিল্লি সরকারের মতে, সাপ্লাই চেইনের কারণে ইলেকট্রিক অটোর বিক্রিতে ঘাটতি দেখা গিয়েছে। দিল্লির পরিবহণ কমিশনার আশিস কুন্দ্রা বলেন, কিছু চিপ সমস্যার কারণে ইলেকট্রিক গাড়িগুলির সরবরাহে প্রভাব পড়েছে। তাঁর মতে, সরবরাহ বন্ধ থাকলেও জুলাইয়ের মাঝামাঝি বা তার পরে এই সমস্যার নিস্পত্তি হয়ে যাবে। এছাড়া ই -অটো রেজিস্ট্রেশনের শেষ তারিখ বাড়ানোর বিষয়ে সরকার নির্দিষ্ট পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

দিল্লি সরকার জানিয়েছে, তারা তাদের দিল্লি ইলেকট্রিক ভেহিকেল পলিসির অধীনে ইলেকট্রিক অটো উপর ৩০ হাজার টাকার ইনসেন্টিভ সহ ৫ শতাংশ সুদের সহায়তা প্রদান করছে।

Categories