Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

Rath Yatra: পুজো দিতে গেলে কাটতে হবে কুপন! তোলাবাজির অভিযোগে তুলকালাম মাহেশে

।। প্রথম কলকাতা।।

আজ জগন্নাথ দেব ,বলরাম এবং সুভদ্রা তাঁর মাসির বাড়ি থেকে ফিরবেন। কাজেই উল্টো রথের এই শুভ দিনে ফের একবার রথের জন্য বিখ্যাত মন্দির গুলিতে দর্শনার্থীদের ভিড় পুজো দেওয়ার জন্য।কেউবা এসেছেন শুধু জগন্নাথ দেবকে দর্শন করার জন্য। তবে তাদেরকে মন্দিরে প্রবেশ করতে গেলে দিতে হবে টাকা। কুপন না কাটলে দিতে দেওয়া হবে না পুজো। এমনই নিয়ম নীতি চালু করল হুগলি জেলার শ্রীরামপুরের অত্যন্ত বিখ্যাত মাহেশের মন্দির। যার ফলে ভক্তবৃন্দরা রীতিমত ক্ষোভে ফেটে পড়লেন।

জগন্নাথ দেবের দর্শন করতে এসে কুপন তাও আবার দাম মাথাপিছু কুড়ি টাকা! এ তো লুটের রাজত্ব। কারণ মাহেশের মন্দিরে রথযাত্রায় পুরী কিংবা ইসকনের থেকে থেকে কোন অংশে কম ভিড় হয় না মাহেশে। সেরকম পরিস্থিতিতে মানুষের ধর্মীয় আবেগকে কাজে লাগিয়ে ব্যবসা শুরু করে দিয়েছে মন্দিরের ট্রাস্টি বোর্ড। এমনটাই অভিযোগ উঠে এসেছে ভক্তদের তরফ থেকে। আর এই বিষয়কে কেন্দ্র করেই মাহেশের জগন্নাথ মন্দিরের সেবায়েত তমাল অধিকারীকে ঘিরে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখান ভক্তরা। পরিস্থিতি ক্রমশই হাতের নাগালের বাইরে যেতে শুরু করলে ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হন স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলর।

পরিস্থিতি কোন রকমের সামাল দেন তিনি । পাশাপাশি শ্রীরামপুর শহর তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শঙ্কর গঙ্গোপাধ্যায়ের কথায়, এর আগেও কখনও মাহেশে আসা ভক্তদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হয়নি আর এইবারেও টাকা নেওয়া হবে না । যদি এই ধরনের কোন নিয়ম তৈরি করা হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে ট্রাস্টি বোর্ডকে। কারণ টাকা দিয়ে জগন্নাথ দেবকে প্রণাম করার রীতিনীতি কখনই প্রচলিত ছিল না মাহেশের মন্দিরে। সূত্রের খবর অনুযায়ী ,বর্তমানে যদিও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। মন্দির সূত্রে জানা গিয়েছে, আজ বিকেল তিনটের পর থেকে উল্টো রথের রশিতে টান পড়বে। মাসির বাড়ি থেকে নিজের বাড়িতে ফিরবেন জগন্নাথ সহ বলরাম সুভদ্রা।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories