Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বল এবার রাজ্যপালের কোর্টে, দিলীপের বিরুদ্ধে নালিশ জানানোর পর মন্তব্য কুণালের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রসঙ্গে কুরুচিকর মন্তব্য করার অভিযোগে আজ তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল রাজ্যপালের কাছে ডেপুটেশন জমা দিতে আসেন। বৃহস্পতিবার ব্রাত্য বসুর নেতৃত্বে ৮ সদস্যের এই প্রতিনিধি দল রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেন এবং অভিযোগ জানান বিজেপি সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে। আর তারপর রাজভবন থেকে তৃণমূলের এই প্রতিনিধি দল বেরিয়ে আসার পর তাঁরা জানান যে , রাজ্যপাল এই বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন। পাশাপাশি দিলীপ ঘোষের এই ধরনের কুৎসিত ভাষায় আক্রমণের কারণে তাঁর কঠোর শাস্তির দাবি জানান প্রতিনিধি দল।

রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাতের পর কুণাল ঘোষ বলেন, যেখানে রাজ্যপাল সব ছোটখাটো বিষয় টুইট করেন সেখানে এই বিষয়ে তাঁর কী করনীয়? তাঁর কাছ থেকে ব্যক্তিগত স্তরে কিছু আশা করা যায় না যেহেতু রাজ্যপাল এক প্রকার বিজেপির পৃষ্ঠপোষক হিসেবেই বাংলায় কাজ করছেন এমনটাই অভিযোগ উঠেছে । কিন্তু তাঁর পদকে মর্যাদা দিয়ে তাঁর কাছে এই অপমানের ন্যায়বিচার চাইতে আসা হয়েছে। রাজ্যপাল পদ শুধু বিজেপি নয়। তৃণমূল বিজেপি সহ গোটা রাজ্যের। কাজেই এবার তিনি বিষয়টি বিবেকের সাথে বিবেচনা করে দেখবেন নাকি বিজেপির নির্দেশে চুপ করে থাকবেন সেটাই দেখার বিষয়। বল এখন রাজ্যপালের কোর্টে।

এই ঘটনার সূত্রপাত হল দিলীপ ঘোষের এক আক্রমণাত্মক মন্তব্যকে ঘিরে। তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলার মেয়ে ভাবমূর্তিতে আঘাত হানতে গিয়ে অত্যন্ত অশালীন ভাষায় আক্রমণ করেন তাকে। দিলীপ ঘোষ বলেন, ” মমতা বাংলায় দাঁড়িয়ে নিজেকে বলেন বাংলার মেয়ে, গোয়ায় গিয়ে বলেন গোয়ার মেয়ে । আরে বাবা-মায়ের ঠিকানা নেই নাকি? যেখানে সেখানে গিয়ে যা ইচ্ছা বলে দেবেন, হয় নাকি এটা?” আর তাঁর এই মন্তব্যকে ঘিরে বর্তমানে শোরগোল পড়ে গিয়েছে ফের একবার রাজ্য রাজনীতিতে। ভারতবর্ষের একজন মহিলা মুখ্যমন্ত্রীকে কীভাবে এমন অপমানজনক কথা বললেন তিনি এই নিয়ে উঠছে হাজারো প্রশ্ন । আর তাঁর শাস্তির দাবি জানাতেই আজ তৃণমূলের প্রতিনিধি দল সাক্ষাৎ করেন রাজ্যপালের সঙ্গে।

অন্যদিকে রাজ্যে আরও একটি বিষয় নিয়ে বেশ সমালোচনা চলছে। তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রের কালী বিতর্ককে নিয়ে এখনও পর্যন্ত সরগরম পরিস্থিতি। সেই প্রসঙ্গে কুণাল ঘোষ মন্তব্য করেন, মা কালীর পূজা অর্চনার ক্ষেত্রে একেক রকমের নিয়ম রয়েছে। তাঁর ভক্তরা তাকে একেক রকম ভাবে পূজো করেন। বিভিন্ন পুরাতন শাস্ত্রে উল্লেখ করা রয়েছে যে মা কালীকে কী কী নিবেদন করা হয় পূজার সময়। তৃণমূলের বক্তব্য, এমন কোন পোস্টার বা ছবি যেখানে মা কালীকে বিকৃতভাবে দেখানো হচ্ছে কিংবা এমন কোন জিনিস যোগ করা হচ্ছে যা গ্রহণযোগ্য নয়, তাতে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত লাগে। যা তৃণমূল কংগ্রেস কখনই সমর্থন করে না । কিন্তু কে কিভাবে পুজো করবেন এর মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস নেই।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories