Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

উচ্চাকাঙ্ক্ষী রাজ্যের তালিকায় পশ্চিমবঙ্গ, প্রকাশিত কেন্দ্রীয় রিপোর্টে

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

কেন্দ্র বরাবর বঞ্চনা করে রাজ্যকে এমন অভিযোগ শোনা যায় সব সময়। তবে হাজার বঞ্চনার পরেও কেন্দ্রীয় কোন রিপোর্টে বাংলার ফলাফল বরাবরই আশাব্যঞ্জক হয়। ব্যতিক্রম হল না এবারেও। কেন্দ্রীয় রিপোর্টে তৃতীয় শ্রেণীভুক্ত হিসাবে উচ্চাকাঙ্খী রাজ্যের তকমা পেল মমতার বাংলা।

প্রথম বা দ্বিতীয় শ্রেণি নয়। ব্যবসা এবং লগ্নির পরিবেশ কতখানি সহজ, সেই মাপকাঠিতে পশ্চিমবঙ্গ মোদী সরকারের রিপোর্টে তৃতীয় শ্রেণিভুক্ত উচ্চাকাঙ্ক্ষী রাজ্যের তালিকায় স্থান পেল। এই স্থান লাভ যে রাজ্যের উন্নতিতে আরও অনুঘটকের কাজ করবে এমনই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ এবং পীযূষ গয়াল যৌথ ভাবে এই রিপোর্ট প্রকাশ করেছেন। সীতারামন এই প্রসঙ্গে বলেছেন, এখন এই রিপোর্টের লক্ষ্য একটাই, দেশে ব্যবসায়িক ক্ষেত্রের সমূহ উন্নতি। সরকারের অন্যান্য সব কিছুর মতো এই ব্যাপারেও রাজ্যগুলিকে সংস্কারে উৎসাহিত করার চেষ্টা হচ্ছে। তার আরও বক্তব্য এই যে করোনা আবহে যথেষ্ট পিছিয়ে পড়েছিল দেশের ব্যবসায়িক ক্ষেত্র গুলি আস্তে আস্তে সেগুলো ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে।

নির্মলার মত একক সুরে আরেক মন্ত্রী পীযূষ গয়ালের বক্তব্য, এক রাজ্য যাতে অন্য রাজ্যের থেকে শিখতে পারে এবং সামগ্রিক ভাবে ভারত লগ্নির সব থেকে পছন্দের গন্তব্য হয়ে উঠতে পারে, সেটাই মোদী সরকারের এই মূল্যায়নের লক্ষ্য।

এই রিপোর্ট মূলত ব্যবসা ও লগ্নির পরিবেশ সহজ করতে কোন রাজ্য কতখানি সংস্কারের কাজ করছে, তা যাচাই করে তৈরি হয়। মূলত কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রকের শিল্পোন্নয়ন এবং অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য উন্নয়ন দফতর এই। রিপোর্ট প্রকাশ করে। এবার এই রিপোর্ট কিছুটা বদলেছে অন্যান্য বারের তরফে।

এবারে আগের বছরের মতো কোন রাজ্য প্রথম, কে দ্বিতীয় বা তৃতীয়, তার মধ্যে যায়নি সরকার। তার বদলে রাজ্যগুলিকে ভাগ করা হয়েছে চারটি শ্রেণিতে প্রথম শ্রেণি হল টপ অ্যাচিভার্স বা চূড়ান্ত সফল রাজ্যের শ্রেণি। তার মধ্যে অন্ধ্রপ্রদেশ, গুজরাত, হরিয়ানা, কর্নাটক, পঞ্জাব, তামিলনাড়ু ও তেলঙ্গানা আছে। দ্বিতীয় শ্রেণি অ্যাচিভার্স বা সফল রাজ্যের তালিকায় রয়েছে উত্তরপ্রদেশ, হিমাচল, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, উড়িষ্যা, উত্তরাখণ্ড। তৃতীয় শ্রেণি ‘
অ্যাসপায়ারার্স বা উচ্চাকাঙ্ক্ষী। এই রাজ্যের তালিকাতেই ঠাঁই হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের। সঙ্গে রাজস্থান, কেরল, অসম, ছত্তীসগঢ়, গোয়া, ঝাড়খণ্ডের মতো রাজ্যও এই শ্রেণিতে রয়েছে। এছাড়া দিল্লি, উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিকে উঠতি রাজ্য বা ইমার্জিং বিজনেস ইকোসিস্টেমসের শ্রেণিতে রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ব্যবসা এবং লগ্নির  পরিবেশ কতটা সহজ, সেই নিরিখে রাজ্যগুলির মূল্যায়ন শুরু হয়। প্রথম কয়েক বছর শুধুমাত্র কাজের প্রমাণের ভিত্তিতে মূল্যায়ন হত। এখন হয় পুরোপুরি ব্যবসায়ী, লগ্নিকারী ও শিল্পমহলের মতামত নিয়ে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories