Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ডিজি, এসপির বিরুদ্ধে রুল জারি হাই কোর্টের, নেতাই যেতে শুভেন্দুকে বাধা দেওয়ার জের?

।।প্রথম কলকাতা।।

রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী নেতাই গণহত্যায় মৃতদের শ্রদ্ধা জানাতে গত ৮ জানুয়ারি নেতাই যাচ্ছিলেন। কিন্তু অভিযোগ, ২০ কিলোমিটার আগেই তাকে আটকে দেওয়া হয়। ডিজি, পুলিশ সুপার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নির্দেশে রাস্তা থেকেই শুভেন্দুকে ফিরে যেতে বাধ্য করা হয় বলে অভিযোগ। এই বিষয়ে ডিজি, এসপির বিরুদ্ধে রুল জারি হাই কোর্টের, দেওয়া হল হাজিরার নির্দেশও।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য নির্দেশ দিয়েছেন, আগামী ৩০ জুলাই ওই পুলিশ আধিকারিকদের আদালতে উপস্থিত থাকতে হবে ও শো কজের জবাব দিতে হবে। চলতি বছরে পশ্চিম মেদিনীপুরের নেতাই যাওয়ার পথে বাধা দেওয়া হয় রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে। হাইকোর্টের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও, কেন তাকে বাধা দিল পুলিশ, তা নিয়েই মামলা হয়েছিল। সেই মামলায় এই নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

মামলাকারীর দাবি, গত বছর এ বিষয়ে একটি মামলায় রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল সৌমেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের বেঞ্চে হাজির হয়ে আশ্বস্ত করেছিলেন, বিরোধী দলনেতা রাজ্যের যে কোনও প্রান্তে যেতে পারেন। তাকে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা দেবে রাজ্য। কিন্তু নেতাইয়ে উল্টো ঘটনা ঘটায় ওই আধিকারিকদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা হয়। সেই মামলাতেই রুল জারি হল।

পুলিশ বাধা দিচ্ছে বলে আগেও একটি মামলা করেছিলেন শুভেন্দু। গত বছর আদালত নির্দেশ দিয়েছিল, বিরোধী দলনেতা রাজ্যের যে কোনও প্রান্তেই চাইলে যেতে পারেন। রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল আদালতে হাজির হয়ে আশ্বস্ত করেছিলেন, বিরোধী দলনেতার জন্য রাজ্য প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা দেবে। কিন্তু বাস্তবে নেতাইয়ে তার উল্টো ঘটনা ঘটে। এরপরই পুলিশ আধিকারিকদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা হয়। তার জেরেই রুল ইস্যু করল হাইকোর্ট।

কী হয়েছিল সেদিন? নেতাইয়ে যাওয়ার পথে শুভেন্দু অধিকারীকে মাঝপথে আটকেছিল পুলিশ। পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন বিরোধী দলনেতা। পরে কর্মসূচি বদল করতে হয় বিরোধী দলনেতাকে। নেতাইয়ের দিকে এগোতেই তার কনভয় আটকে দেওয়া হয়। বলা হয়েছিল, যদি শুভেন্দু একা যেতে চান তবেই তিনি অনুমতি পাবেন। কিন্তু, বিরোধী দলনেতা একা যেতে চাননি। তার সঙ্গে যারা ছিলেন তাদের নিয়েই নেতাইয়ে যেতে চেয়েছিলেন তিনি। এরপর লালগড় ঢোকার মুখে ঝিটকার জঙ্গল থেকে ফিরতে হয় শুভেন্দুকে। ভিমপুরে অস্থায়ী শহিদ বেদী তৈরি করে সেখানেই নেতাইয়ের শহিদদের শ্রদ্ধা জানান নন্দীগ্রামের বিধায়ক।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories