Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

MSC: মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনে বঞ্চিত প্রার্থীদের ধর্নার আজ অষ্টম দিন, মঞ্চে উপস্থিত বিমান বসু

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

রাজ্যজুড়ে নিয়োগের দাবিতে এবং নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতির প্রতিবাদে সরব হয়ে উঠেছেন চাকরিপ্রার্থীরা। একের পর এক বিক্ষোভ আন্দোলন দেখা যাচ্ছে শহরের বুকে। উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীরা যোগ্য হওয়া সত্ত্বেও তাদের নিয়োগ করা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠছে বারবার। আর এই একই বিষয়কে কেন্দ্র করে কলকাতায় ইন্দিরা ভবনের কাছে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীদের তরফ থেকে চলছে ধর্না। তার আজ অষ্টম দিন। কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী সেখানে বিকেল চারটে পর্যন্ত থাকতে পারবেন চাকরি প্রার্থীরা। কিন্তু তারপর ধর্না মঞ্চ থেকে উঠে আসতে হবে তাদের।

এরকম পরিস্থিতিতে বুধবার ওই ধর্না মঞ্চে গিয়ে উপস্থিত হন বর্ষীয়ান সিপিআইএম নেতা বিমান বসু (Biman Basu)। এছাড়াও এদিন ধর্না মঞ্চে আসেন কংগ্রেস নেতা আবদুল মান্নান সহ বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকী। প্রায় ১২ টি দাবি নিয়ে তাঁরা ক্রমাগত ধর্না মঞ্চে অবস্থান করছেন। অভিযোগ উঠেছে একই রাজ্যের দুটি কমিশনের জন্য আলাদা দৃষ্টিভঙ্গির। সেই কারণে ২০১৩ সালে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর ২০১৮ সালের নিয়োগ এবং বাদবাকি সিট শূন্য থাকার পরেও নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ২০১৩ সালে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। সেখানে বলা হয়েছিল ৩১৮৩টি সিট রয়েছে । এরপর ২০১৮ সালেরষ নিয়োগ করা হয় ১৯০০ জনকে। কিন্তু বাদবাকি উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের এখনও পর্যন্ত নিয়োগপত্র দেওয়া হয়নি। তাই মাদ্রাসা কমিশনকে অবিলম্বে একটি তালিকা প্রকাশ করতে হবে। আর তারপর উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীদের নিয়োগ দিতে হবে এই দাবিতেই ইন্দিরা ভবনের সামনে চলছে তাদের ধর্না।

এদিন বিমান বসু ধর্না মঞ্চে এসে চাকরিপ্রার্থীদের দাবি দাওয়া এবং অভিযোগ শোনেন। তিনি বলেন, প্রতিবাদ করার জন্যেও সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। ১১ টা থেকে চারটে পর্যন্ত ধর্না মঞ্চে থাকবেন বিক্ষোভকারীরা কিন্তু তারপর তাদের উঠে যেতে হবে । নইলেই তাদেরকে তুলে নিয়ে যাওয়া হবে লালবাজারে। এই যে ব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা করেন তিনি। তাঁর কথায়, এটা গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার পক্ষে বিপজ্জনক। রাজ্যে উন্নয়নের জোয়ার চলছে এমনটাই দাবি করে থাকে শাসক দল । তবে এই যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে তারজন্যে পরবর্তীতে বাংলার ভবিষ্যৎ নষ্ট হতে চলেছে। আর বাংলার ভবিষ্যৎ নষ্ট করার মতো অধিকার কারও নেই বলে স্পষ্ট জানালেন তিনি।

তিনি এই মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের নিয়োগ প্রসঙ্গে বলেন, যারা পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছিলেন তাদেরকে অবিলম্বে নিয়োগ করতে হবে। আর যারা অকৃতকার্য হয়ে বেআইনিভাবে চাকরি হাতিয়ে নিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। আর তা যদি না করা হয় তবে পরবর্তীতে আরও বড় সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে । বর্তমানে জুনিয়ার মাদ্রাসা, সিনিয়র মাদ্রাসার ক্ষেত্রে শিক্ষকের অভাব দেখা দিয়েছে । কাজেই এই সমস্যা সমাধান করতে যারা উন্নয়নের বাহক তাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। এমনটাই বার্তা দিলেন তিনি।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories