Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

৩২ বছর পর চন্দননগরে উড়ল লাল আবির, তৃণমূলকে হারিয়ে জয়ী বাম প্রার্থী

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

চন্দননগরের আকাশে-বাতাসে এখন একটাই রঙ। লাল। কারণ সেখানে অকাল হোলিতে মেতেছেন বাম-কর্মী সমর্থকরা। চন্দনমগর পুরনিগমের আরও একটি ওয়ার্ড নিজেদের দখলে রাখল বামফ্রন্ট। তৃণমূলকে জোর টক্কর দিয়ে শেষমেশ লড়াইয়ের ময়দান নিজের নামে করলেন সিপিএম প্রার্থী অশোক গঙ্গোপাধ্যায়। ১৩০ ভোটে জয়ী হয়েছেন তিনি। আর স্বাভাবিক ভাবেই পুরনির্বাচনের ফল ঘোষণার পর বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস এখন সেখানকার বাম-কর্মী সমর্থকদের মধ্যে।

১৭ নম্বর ওয়ার্ডের গণনা শেষে দেখা গেল বাম প্রার্থীর মুখে চওড়া হাসি। ওই ওয়ার্ডে ১৩০ ভোটে জিতেছেন অশোক। তাঁর বিরুদ্ধে তৃণমূলের প্রার্থী ছিলেন সুদীপ কুমার নাথ। চন্দননগরের এই ওয়ার্ডে ১৯৯০ সালের পর থেকে সিপিএম কখনও জেতেনি। ৩২ বছর পর এল জয়। জয়ের পর সিপিএম প্রার্থী অশোক গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ‘অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ এই জয়। ৩২ বছর পর ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে জয় এল বামেদের। আমি ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের সকল মানুষের কাউন্সিলর হিসাবে কাজ করতে চাই।’

তিনি আরও জানান,’অত্যন্ত ভাল লাগছে। দীর্ঘ এতবছর পর এখানকার মানুষ আমাদের উপর আস্থা-বিশ্বাস রাখতে পেরেছে তাতে আমি খুশি। আমার প্রথম কথাই হল এই সকল মানুষের আরও যোগ্য হয়ে ওঠা, আরও বিনয়ী হয়ে ওঠা। তাঁদের আশা-আকাঙ্খা পুরণ করা। প্রথমেই আমি বলব যাঁরা পৌর কর্মচারি বন্ধু রয়েছেন তাঁরা যেন সঠিক বেতন পান, দৈনিক মজুরি প্রাপ্ত কর্মীরা যেন সঠিক মজুরি পান তার চেষ্টা করব।’

গত ফেব্রুয়ারি মাসে ৩৩টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত চন্দননগর পুরনিগমের ৩২ টি ওয়ার্ডে নির্বাচন হয়েছিল। সেই সময় একামাত্র ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে জয়ী হয়েছিলেন বাম প্রার্থী অভিজিৎ সেন। অপরদিকে, ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে মনোনয়ন দাখিলের পরেই মৃত্যু হয় বিজেপি প্রার্থী গোকুল চন্দ্র পালের। সেই কারণে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডটিতে ভোট স্থগিত হয়ে যায়।

এই ওয়ার্ডে মূল লড়াই ছিল তৃণমূল বনাম বাম প্রার্থীর। চন্দননগর পুরভোটে বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে খুব অল্প ব্যবধানে হারতে হয়েছিল বাম প্রার্থীদের। ফলত, অশোক গঙ্গোপাধ্যায়ের এই জয় সিপিএমকে চন্দননগরে বাড়তি অক্সিজেন দেবে সে বিষয়ে সন্দেহ নেই।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories