Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

North 24 Parganas: মৃত্যু হয়েছে ছেলের, তবুও বুঝতেই পারলেন না মা , শিহরণ জাগানো ঘটনা হাবড়ায়

।। প্রথম কলকাতা।।

ছেলের শরীরে আর প্রাণ নেই, কিন্তু তা বুঝতেই পারলেন না বৃদ্ধা মা । শরীর পচে গলে দুর্গন্ধে টেকা দায় প্রতিবেশীদের । কিন্তু একই ঘরে ছেলের মৃতদেহ নিয়ে বসবাস চলছিল তাঁর। অবশেষে প্রতিবেশীরা এসে দেখেন মৃত্যু হয়েছে তাঁর ছেলের । উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় মৃতদেহ। খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় বৃদ্ধা মাকেও। এই ঘটনা উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবড়া থানার বেলতলা এলাকার। ঠিক যেন রবিনসনস্ট্রিট কাণ্ডের ছায়া।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় , বেলতলা এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছিলেন সুনীল দত্ত এবং তাঁর মা কমলা দত্ত। সুনীল দত্তের বয়স প্রায় ৬৫ বছর। কোন কারনে বাড়িতেই মৃত্যু হয় তাঁর । প্রাথমিক অনুমান শারীরিক অসুস্থতা জনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে সুনীল বাবুর। তবে তাঁর মৃত্যু হবার পরেও তা বুঝতেই পারেননি কমলা দেবী। বার্ধক্য জনিত কারণে হয়তো ঠাওর করতে পারেন নি তিনি । ছেলের নিথর দেহকে আগলে ধরে বসে ছিলেন ঘরেই । ভেবেছিলেন ছেলে ঘুমোচ্ছে উঠে যাবে কিছুক্ষন পরেই। তবে সেই ছেলের যে আর ঘুম ভাঙবে না তা হয়তো কল্পনাও তিনি করেননি।

পুলিশ সূত্রে খবর ,সুনীল বাবুর মৃত্যু হয়েছে বেশ কয়েকদিন আগে । যার কারণে মৃতদেহ পচে গিয়েছিল। দুর্গন্ধ বেরোতে শুরু করেছিল আর সেই দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে এলাকায় । যার কারণে প্রতিবেশীরা মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জালনার কাছে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে যান । সেই সময় আরো বেশি দুর্গন্ধে রীতিমত দমবন্ধকর পরিস্থিতি। তবে জালনা দিয়ে উঁকি মারতেই তাঁরা দেখতে পান যে সুনীল বাবুর দেহ আগলে বসে রয়েছেন কমলা দেবী। এরপর খবর দেওয়া হয় হাবড়া থানাতে। সেখানে এসে উপস্থিত হন পুলিশ কর্মীরা।

এখনও পর্যন্ত কমলাদেবী বুঝে উঠতে পারছেন না যে তাঁর ছেলের মৃত্যু হয়েছে । তাকেও চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে হাসপাতালে। এই গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এইরকম ঘটনা ঘটেছিল কলকাতার রবিনসন্সট্রিটেও ।২০১৫ সালে কঙ্কালের সঙ্গে বসবাস করছিলেন পার্থ। আর তারপর একাধিকবার মৃতদেহ ঘরে রেখেই স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে দেখা গিয়েছিল বেশ কয়েকজনকে। সম্প্রতি এই রকম আরেকটি ঘটনা ঘটেছিল দূর্গাপুর স্টিল টাউনশিপের সেকেন্ডারি রোডের কাছে। সুনীল জানা নামে এক ব্যক্তির মৃতদেহ আগলে বসেছিলেন তার ৮০ বছরের বৃদ্ধা মা। এর আগেও কলকাতার রামগড়ে ছেলের মৃত্যুর পর তা মেনে নিতে পারেননি মা, তাই মৃতদেহকে নিয়েই ঘরবন্দি ছিলেন তিনিও।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories