Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘শুভেন্দু অধিকারী সিন্ড্রোমে আক্রান্ত হয়ে ব্যক্তিগত আক্রমণ করছে তৃণমূল’, বিস্ফোরক সুকান্ত

।।প্রথম কলকাতা।।

মঙ্গলবার বিরোধী দল নেতা শুভেন্দু অধিকারীর গ্রেফতারির দাবি নিয়ে রাজ্যপালের দ্বারস্থ হলেন তৃণমূলের প্রতিনিধি দল। আর এই নিয়েই তীব্র কটাক্ষ সুকান্ত মজুমদার এবং শমীক ভট্টাচার্যর।শমীক বলেন যে তৃণমূলের প্রতিনিধি দল রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেছেন, করতেই পারেন। কিন্তু এই সাক্ষাৎ শেষে রাজ্যপাল যে ট্যুইট করেছেন তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। রাজ্যপাল লিখেছেন রাজ্যে আইন শাসন বলে কিছুই নেই। আর এই ট্যুইটকেই কার্যতা হাতিয়ার করল বিজেপি।

শমীক বলেন রাজ্যপালের প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে সেই রাজ্যে সাংবিধানিক সংকট হচ্ছে কী না দেখা। রাজ্যপালের সঙ্গে তৃণমূলের প্রতিনিধি দল কী কথা বলেছে তা নিয়ে বিজেপির কোন মাথাব্যথা নেই। শমীক এদিন আবার মনে করিয়ে দেন যে রাজ্য পুলিশকে কীভাবে ব্যবহার করছে সরকার!তিনি আরও বলেন যে এই পুলিশই কুণাল ঘোষকে থামাতে উদ্যত হয়েছিল। যাতে তার কথা কেউ শুনতে না পান তাই গাড়ির বনেট চাপড়ে মুখ দিয়ে আওয়াজ করে তাকে থামানো হয়েছিল।

এবার সেই পুলিশই সুদীপ্ত সেনকে দিয়ে একটা মিথ্যে ভিডিও তৈরি করিয়ে ছড়িয়ে দিল সবার মধ্যে। এটা একটা পরিকল্পিত নাটক। কোর্টের আন্ডারে আছে এই বিষয়টা রাজ্যপাল কী করবেন।শমীক জানান তৃণমূল শুভেন্দু অধিকারী সিন্ড্রোমে আক্রান্ত হয়ে ব্যক্তিগত আক্রমণ করছে যা কখনই কাম্য নয়। কিন্তু এসব কিছু করেই কোন লাভ নেই। কারণ রাজ্যের মানুষ মমতা সরকারের আসল রূপ এতদিনে চিনে গেছে।অন্যদিকে সুকান্ত সরব হন নির্মল মাজির মা সারদা প্রসঙ্গে। তিনি বলেন ওনার কথা শুনে তো সবাই হাসছে।

চাটুকারিতার একটা সীমা থাকে। ব্যঙ্গ করে সুকান্ত বলেন আর ক’দিন বাদে তো কালীঘাটে এবার বিবেকানন্দ জন্মগ্রহণ করবে।কেন্দ্রের প্রকল্পের নাম বাংলায় ব্যবহার নিয়ে সুকান্ত কটাক্ষ করে বলেন যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাধারণ মানুষকে ভুল তথ্য দিচ্ছেন। প্রথমে উনি বলেছিলেন যাতে মানুষ বুঝতে পারে সহজেই তাই তিনি নাম বদলেছেন। সুকান্ত প্রশ্ন তোলেন যে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা এর মধ্যে কোন শব্দ বাংলা নয় যে মানুষ বুঝতে পারবেনা?একথা না বলতে চাইলেও বাধ্য হয়ে বলা যে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মিথ্যা কথা বলছেন।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories