Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

Kolkata: ১০ কোটি টাকার সোনা লুঠ! সন্দেহ এড়াতে মাথায় আঘাত নিয়ে থানায় হাজির মূলচক্রী

।। প্রথম কলকাতা।।।

শহরের বুকে গতকাল আবারও একটি দুঃসাহসিক ডাকাতির ঘটনা ঘটে । কিন্তু এই ঘটনাটিকে ডাকাতি হিসেবে সাজানোর চেষ্টা করা হলেও ব্যর্থ হয় দুষ্কৃতীরা। যদিও পরিকল্পনা মতো থানায় গিয়ে মিথ্যে গল্প বানিয়ে অভিযোগ দায়ের করা হয়। তবে অবশেষে পুলিশি জেরার মুখে পড়ে সোনা লুঠের কথা স্বীকার করে নেয় দুষ্কৃতী। জানা যায় লুঠ করা ওই সোনার পরিমাণ বিপুল। তাঁর আনুমানিক বাজার মূল্য বর্তমানে প্রায় ১০ কোটি । তবে অভিযোগ দায়ের হওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই এই রহস্যের কিনারা করে পুলিশ।ঘটনাটি হল, সোমবার রাতে নীতিশ রায় নামে এক ব্যক্তি এসে উপস্থিত হন গিরীশ পার্ক থানায়।

তিনি পুলিশকে জানান যে, এক সোনা ব্যবসায়ীর দফতরে তিনি কর্মরত । তবে ওই দফতর থেকে বহু মূল্যের সোনা লুঠ করে নিয়েছে দুষ্কৃতীরা। লুঠ হওয়া সোনার পরিমাণ অনেক। ১১৬ গ্রামের ৭টি সোনার বাট, ৭৪৩ গ্রামের একটি সোনার বাট। তিনি সিংহীবাগানের ওই অফিসে যখন ছিলেন তখন ট্যাক্সি করে দুই দুষ্কৃতী আসে আর তারপর অফিস থেকে সোনা লুঠ করে নিয়ে যায় তাঁরা। বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন তিনি কিন্তু তাঁরা তাঁর মাথায় সজরে আঘাত করে।এর পরেই তিনি পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করতে আসেন। তবে অভিযুক্ত নীতিশের বয়ানে একাধিক অসঙ্গতি লক্ষ্য করেন পুলিশ আধিকারিকরা। তাকে লাগাতার জেরা করতে শুরু করলে অবশেষে সোনা লুঠের ঘটনা স্বীকার করে সে ।

ম্যারাথন জেরার পর পুলিশকে সে জানায় যে ওই দফতরে কোন ডাকাতি হয়নি। পুরো গল্পটি ছিল সাজানো। আসলে সে এবং তাঁর ভাই নিতিন দুজনে দফতর থেকে ওই বিপুল পরিমাণ সোনা সরিয়ে দিয়েছেন। যাতে তাদের উপর কোনো রকম সন্দেহ না যায় তার জন্য নিজেই এসে উপস্থিত হয়েছিলেন থানায়। পরবর্তীতে পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এবং জানতে পারে যে উল্টোডাঙ্গা রেল আবাসনের কাছে একটি ক্লাব লাগোয়া পরিত্যক্ত ঘরে ওই সোনা লুকিয়ে রাখা হয়েছে। গতকাল রাতেই পুলিশ বিপুল পরিমাণ সোনা উদ্ধার করে তুলে দেয় মালিকের হাতে। এছাড়াও নীতিশ এবং নীতিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা যায়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories