Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

দলীয় কোন্দল সামলাতে জুলাইতে রাজ্যে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব, আদৌ কাজ হবে? প্রশ্ন গেরুয়া শিবিরেই

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

এই মুহুর্তে বঙ্গ রাজনীতির ক্ষেত্রে বিজেপি অবস্থা মোটেও ভালো নয়। বারবার প্রকাশ্যে আসছে দলীয় কোন্দল। নিজেদের মধ্যে সমঝোতার অভাব বারবার বিড়ম্বনায় ফেলছে দলকে।সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে ক্ষত মেরামত করতে আসছে শীর্ষ নেতৃত্ব কিন্তু আদৌ এই ওষুধে কাজ দেবে তো? উঠছে প্রশ্ন। আর এই প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছে স্বয়ং বিজেপির অন্দরমহলেই। নিচুতলার কর্মীরা বলছেন যখন দলের মেরুদণ্ডই ভেঙে যাওয়ার জোগাড় তাহলে কোন ওষুধে কাজ করবে? তাই আগামী মাসের বৈঠকের পর বিজেপির অবস্থা কতটা বদলাবে তা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে একাধিক প্রশ্ন।

এই প্রবল ক্ষত কতটা মেরামত করা যাবে? উত্তর নিয়ে সংশয় গেরুয়া শিবিরেই। উল্লেখ্য সোমবার ন্যাশনাল লাইব্রেরিতে এ রাজ্যে হারা ও দুর্বল লোকসভা আসনগুলির পর্যবেক্ষক ও আহ্বায়কদের নিয়ে বৈঠক করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা তথা দলের জাতীয় মুখপাত্র সম্বিত পাত্র। লোকসভা আসনে এ রাজ্য থেকে ১৮ টা আসন পেয়েছিল বিজেপি। এ যাবৎকালে এই ফলটাই গেরুয়া শিবিরের সেরা ফলাফল। আর এই বৈঠকও সেই ভাবে ফলপ্রসূ নয় কারণ রাজ্য ও জেলা নেতাদের লোকসভার দায়িত্ব দেওয়া হবে বলে সোমবার ডাকা হয়, তাদের অনেকেই এলেন না।

ফলে যাদের নিয়ে বিজেপি লড়াই করবে নিচুতলায় সেখানেও কোন্দল।জানা গেছে রাজ্যে লোকসভা কেন্দ্রগুলির দলের আহ্বায়ক ও পর্যবেক্ষক কাদের করা হয়েছে তা এদিনের বৈঠকের আগে ঘোষণা করা হয়নি। বৈঠকে আসার জন্য ফোনে তাদের ডাকা হয়। দলের একাংশের বক্তব্য, কোন্দলের ভয়েই অফিসিয়ালি আহবায়ক ও ইনচার্জদের নাম ঘোষণা করা হয়নি লোকসভা ও বিধানসভার।

চব্বিশের লোকসভা নির্বাচনের আগে বাংলায় দলের সংগঠনের কঙ্কালসার চেহারা সামাল দিতে রীতিমতো নাজেহাল কেন্দ্রীয় নেতারা। সেইজন্যই কেন্দ্রীয় প্রকল্পের প্রচার ও জনসংযোগ বাড়াতে রাজ্যে আসছেন স্মৃতি ইরানি, নির্মলা সীতারমণ, এস. জয়শংকর, কিরেণ রিজেজু, নরেন্দ্র সিং তোমর , অর্জুন মুণ্ডা ও ধর্মেন্দ্র প্রধানদের মতো বিজেপির হেভিওয়েট শীর্ষ নেতা-মন্ত্রীরা। লোকসভা ভাগ করে থাকবেন তাঁরা। তবে শুধু বাংলায় নয় সারা দেশেই এই সাংগঠনিক কাজ করবে বিজেপি।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories