Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

দলত্যাগীদের কেন ফেরানো হচ্ছে তৃণমূলে? প্রকাশ্যে সমালোচনা হাওড়া সদরের দলীয় সাংসদের

।। প্রথম কলকাতা।।

বর্তমানে বঙ্গ রাজনীতিতে দলবদলের বিষয়টি খানিকটা নিয়মিত হয়ে গিয়েছে। যারা একসময় তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিরোধী দল বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন আজ তাঁরাই একে একে নিজের পুরনো দলে ফিরে আসছেন। যোগদান করছেন সেখানে আর তারপরে তাদের পুরনো দল বিজেপি সম্পর্কে বিষোদগার করছেন। কিন্তু তাদের দলে ফেরানোর বিষয়টি অনেকেই ভালো চোখে দেখছেন না। যা নিয়ে দলের মধ্যে প্রশ্ন উঠছে । আর এবার প্রকাশ্যে এই বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা করলেন হাওড়া সদরের দলীয় সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। যা ঘিরে বর্তমানে ফের শুরু হয়েছে বিতর্ক।

প্রসূন বন্দোপাধ্যায়ের বক্তব্য , বিধানসভা নির্বাচনের আগে যারা দল ছেড়ে চলে গিয়েছিল তাঁরা স্পষ্টতই দলের ক্ষতি করতে চেয়েছিল। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস সরকার গড়ার পর আবার তাঁরা ঘাসফুল শিবিরের দিকে পা বাড়িয়েছেন। একে একে ফিরে আসছেন কিন্তু তিনি প্রশ্ন তুলেছেন যে যারা একসময় দলকে মাঝপথে ছেড়ে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তাদেরকে আবার কেন ফেরানো হচ্ছে । এই বিষয়ে তিনি একদিকে যেমন দুঃখ প্রকাশ করেন তেমনি অন্যদিকে প্রতিবাদের সুর চড়ান।

তবে এই প্রতিবাদ প্রসঙ্গেও উঠছে প্রশ্ন। প্রতিবাদ কাদের বিরুদ্ধে ? কার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে? দলের মধ্যেই কি প্রতিবাদ? কারণ তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুমোদন ছাড়া দলে কোন কাজ হয় না । এটা সকলেরই জানা। যারা দলে ফিরে আসছেন তাদেরকে অবশ্যই ফিরে আসার অনুমতি দিয়েছেন তিনি। সেই জায়গা থেকে প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই প্রতিবাদ কতটা কার্যকরী হবে তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ থেকে যাচ্ছে। অন্যদিকে সাংসদের এই বক্তব্য প্রসঙ্গে মন্তব্য করেন হাওড়া সদর তৃণমূল সভাপতি এবং ডোমজুড়ে বিধায়ক কল্যাণ ঘোষ।

তিনি বলেন, দলে কারা ফিরবেন এই সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ দলনেত্রী এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের । বাদ বাকি যারা দলে রয়েছেন তাঁরা একনিষ্ঠ কর্মী আর শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশ মেনে চলাই তাদের প্রধান কাজ। তাই প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় যা বলেছেন তা তাঁর একান্তই ব্যক্তিগত মতামত । বর্তমানে অর্জুন সিং , রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সহ আরও বেশ কয়েকজন যারা বিজেপিতে গিয়েছিলেন তাঁরা তৃণমূলে ফিরে এসেছেন। আর কিছুদিনের মধ্যে হয়তো শোভন চট্টোপাধ্যায়ও দলে ফিরে আসবেন। কারণ তাঁর মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে এখনও পর্যন্ত জল্পনা চলছে রাজনৈতিক মহলে।

কাজেই দলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ঘোষণা করায় এই সুযোগটি হাতছাড়া করেনি বিরোধী দল । তৃণমূলের অন্দরে বিক্ষোভের আঁচ দেখতে পেয়েই কটাক্ষ করে বিজেপি । রাজ্য বিজেপির সম্পাদক উমেশ রায় এই প্রসঙ্গে বলেন , বিধানসভা নির্বাচনের আগে যারা বিজেপিতে গিয়েছিলেন তাঁরা ভেবেছিলেন বিজেপি হয়তো ক্ষমতায় আসবে কিন্তু তাদের প্রত্যাশা মত ফলাফল হয়নি। সেই কারণে আবার পুরনো দলে ফিরে গিয়েছেন। কারণ তা্রা নিজেদের সুবিধামতো দলবদল করেন। একই রকম ভাবে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলে কোন মূল্য নেই। তিনি নিজেই জানেন না দলের মধ্যে তিনি কে। কাজেই যারা এই ভাবে দলবদল করছে তাদের কোনো বিশ্বাসযোগ্যতা নেই।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories