Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

South 24 Pargana: পুলিশের সঙ্গে অশালীন আচরণ, মদ্যপ অবস্থায় হুমকি, শ্রীঘরে বিজেপি নেতা

।। প্রথম কলকাতা।।

মদ্যপ অবস্থায় এলাকাবাসীর সঙ্গে অভদ্র আচরণ করেন স্থানীয় বিজেপি নেতা । যদিও প্রথমটায় স্থানীয় বাসিন্দারা তাকে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু তাঁর আচরণ সহ্যের বাইরে চলে যাওয়ায় খবর দেওয়া হয় পুলিশকে । ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে উপস্থিত হতে বিষয়টি আরও জটিল হয়ে ওঠে । কারণ নেশার ঘোরে পুলিশকে লাগাতার হুমকি দিতে থাকেন ওই বিজেপি নেতা। পুলিশের সঙ্গে অশালীন আচরণ দেখা যায় তাঁর। যার ফলে অবশেষে পুলিশ গ্রেফতার করে তাকে ।ঘটনাটি দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার কুলতলি থানার অন্তর্গত পাচুয়াখালি ব্রিজ সংলগ্ন এলাকার।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রাতে । কুলতলি ব্লকের ৪ নম্বর মণ্ডলের বিজেপি সভাপতি হলেন অমিত মন্ডল । বিজেপি নেতা হিসেবে এলাকায় যথেষ্ট দাপট রয়েছে তাঁর। গতকাল রাতে তিনি আচমকাই নেশার ঘোরে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে অসভ্যতা করতে থাকেন। গালিগালাজ করেন স্থানীয় বাসিন্দাদের । এমনকি হুমকিও দেন তাদের । তাঁর ব্যবহার প্রথমটা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন স্থানীয়রা কিন্তু কোনমতেই চুপ করতে নারাজ ওই বিজেপি নেতা । যার কারণে বাধ্য হয়ে এক প্রকার পুলিশকে খবর দিতে হয়। ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয় কুলতলি থানার পুলিশ।

পুলিশকে দেখেও নিজেকে সামলানোর চেষ্টা করেননি ওই বিজেপি নেতা বরং আরও উগ্র হয়ে যান তিনি। পুলিশকেও একাধিকবার হুমকি দেন অমিত মন্ডল । আর তারপরই পুলিশ গ্রেফতার করে তাকে । রবিবার তাকে বারুইপুর আদালতে তোলা হবে বলে জানা গিয়েছে। বিজেপি নেতার মদ্যপ অবস্থায় এহেন আচরণ ঘিরে বর্তমানে অস্বস্তিতে পড়েছে গেরুয়া শিবির । এই ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়েছে ওই এলাকায়। স্বাভাবিকভাবেই বিরোধীদলের তরফ থেকে কটাক্ষ শোনা গিয়েছে। বিজেপি নেতার এই আচরন প্রসঙ্গে তীব্র নিন্দায় সরব হয় তৃণমূল।

প্রসঙ্গত, এর আগেও পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন এক বিজেপি নেতা। দুর্নীতির প্রতিবাদ জানাতে পথ অবরোধ করেছিলেন তাঁরা কিন্তু সেখানে পুলিশ বাহিনী অবরোধ তুলতে তৎপর হলে বচসা বাঁধে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে। ঘটনাস্থলে গিয়ে উপস্থিত হন বাঁকুড়ার ছাতনা থানার আইসি আশিস জৈন। সেই সময় বিক্ষোভ মিছিলে থাকা বাঁকুড়া জেলার বিজেপির প্রাক্তন জেলা সাধারণ সম্পাদক জীবন চক্রবর্তী আইসি’র উর্দি খুলে নেওয়ার হুমকি দেন। যদিও পরবর্তীতে বিজেপির তরফ থেকে সবাই দেওয়া হয়েছিল যে জীবন চক্রবর্তী কোন পদে নেই।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories