Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

আগরতলায় কংগ্রেস জেতার পরেই দলীয় কার্যালয়ে হামলা, অভিযোগের তীর বিজেপির বিরুদ্ধে

।।প্রথম কলকাতা।।

ভোটের ফল বেরতেই অশান্তি ত্রিপুরায়। আগরতলায় কংগ্রেসের অফিসে হামলার অভিযোগ উঠল শাসক দল বিজেপির বিরুদ্ধে। রক্তাক্ত হলেন প্রদেশ সভাপতি বীরজিৎ সিংহ।অন্যদিকে রাজনৈতিক জীবনে প্রথমবার নির্বাচনে জয় পেলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী ডা. মানিক সাহা। টাউন বড়দোয়ালি কংগ্রেস প্রার্থীকে ৬ হাজার ভোটে পরাজিত করেছেন তিনি। অন্যদিকে আগরতলা কেন্দ্রে জয়ী কংগ্রেসের সুদীপ রায় বর্মন। বাকি দু’টি কেন্দ্র যুবরাজ নগর এবং সুরমায় বিরোধীদের চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে বিজেপি। চার আসনেই তৃণমূল প্রার্থীদের জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়ার পথে।

রবিবার চার বিধানসভার উপনির্বাচনে শুধুমাত্র আগরতলা আসনে জয়লাভ করেছেন কংগ্রেস প্রার্থী সুদীপ রায় বর্মণ। তার জয়ে শুভেচ্ছা জানান ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা। কিন্তু এর পরেই অশান্তি ছড়ায়। অভিযোগ, আগরতলায় কংগ্রেসের সদর অফিসে হামলা চালায় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। ভাঙা হয় পার্টি অফিসের আসবাবপত্র।শুধু তাই নয় মারধর করা হয় নেতাদের। নিস্তার পাননি ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিও। মাথা ফাটে তার। যদিও বিজেপি এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। উল্লেখ্য, বিপ্লব দেবের মন্ত্রীসভার তৎকালীন মন্ত্রী সুদীপ মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে ফিরে আসেন তার পুরনো দল কংগ্রেসে। উপনির্বাচনে কংগ্রেসের বাজি ছিলেন তিনিই। জিতেওছেন। তার পরই শুরু হয়েছে অশান্তি।

রবিবারের ফল প্রকাশের পর দেখা যায়, প্রথম বার ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেই জয়ী হয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা। বড়দোয়ালি কেন্দ্রে থেকে মানিক পেলেন ১৭,১৮১টি ভোট। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেসের দু’বারের বিধায়ক আশিস সাহা পান ১১,০৭৭টি ভোট। এই কেন্দ্রের তৃণমূলের ওজনদার প্রার্থী সংহিতা ভট্টাচার্য পেয়েছেন মাত্র ৯৮৬টি ভোট। সেই আসনে বাম প্রার্থী পেয়েছেন ৩,৩৭৬টি ভোট। বস্তুত, রবিবার ত্রিপুরার চার বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের ফলেও দেখা গিয়েছে গেরুয়া ঝড়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories