Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘গণতন্ত্রকে দুমড়ে-মুচরে ভেঙে ফেলা হয়েছিল’, ৭৫-এর জরুরি অবস্থার স্মৃতিচারণ মোদীর

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

১৯৭৫ সালের ২৫ সে জুন দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছিল। তদানীন্তন কংগ্রেস সরকারের এই ঘোষণা নিয়ে যথেষ্ট বিতর্ক উঠেছিল। বিরোধীরা যাকে কালো অধ্যায় বলে চিহ্নিত করে থাকেন। আজ মন কি বাত অনুষ্ঠানে ৭৫ এর জরুরী অবস্থার প্রসঙ্গ উত্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রী জানান, জরুরি অবস্থা চলাকালীন দেশের অন্ধকার সময়ের কথা ভুলে গেলে চলবে না।

১৯৭৫ সালের ২৫ সে জুন দেশজুড়ে জরুরি অবস্থার ঘোষণা করেছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। সাংবিধানিক অধিকার ও নাগরিকদের ব্যক্তি স্বাধীনতা কেড়ে নেওয়া হয়েছিল। বিরোধীরা এই সময়কে কালো অধ্যায় বলে চিহ্নিত করেন। এই সময় সংবাদ মাধ্যমের কণ্ঠরোধ করা হয়। একাধিক বিরোধী নেতাকে কারাগারে বন্দি করা হয়। বিজেপি ২৫ সে জুনের দিনটিকে কালো দিবস হিসেবে এখনো পালন করে।

আজ মন কি বাত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী জানান, “আজ যখন আমরা দেশের স্বাধীনতার ৭৫ তম বর্ষ ও আজাদির অমৃত মহোৎসব পালন করছি। তখন জরুরি অবস্থা চলাকালীন দেশের অন্ধকার সময়ের কথা ভুলে গেলে চলবে না। আমাদের আগামী প্রজন্ম যেন এই অন্ধকার সময়ের কথা ভুলে না যায়।”

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, “১৯৭৫ সালের জুন মাসে যখন জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছিল, তখন নাগরিকদের সমস্ত অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়। নাগরিকদের ব্যক্তি স্বাধীনতার অধিকারও কেড়ে নেওয়া হয়। ভারতের গণতন্ত্রকে দুমড়ে-মুচরে ভেঙে ফেলা হয়েছিল। দেশের আদালত, সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান, সংবাদ মাধ্যম সমস্ত কিছু সরকারের নিয়ন্ত্রণে ছিল।”

তবে, প্রধানমন্ত্রীর দাবি, এতকিছুর পরেও এখন সমস্ত ক্ষেত্রে এগিয়ে দেশ। প্রধানমন্ত্রীর কথায়, “জরুরি অবস্থায় দেশের নাগরিকদের থেকে অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছিল। দেশের নাগরিক, সংবিধান, সংবাদমাধ্যমের উপর আধিপত্য কায়েম করা হয়। এত অত্যাচারের পরেও দেশবাসী লোকতন্ত্রের অধিকার পেয়েছে। জরুরি অবস্থা সরিয়ে লোকতন্ত্রেরই জয় হয়েছে। আজ ভারত সব ক্ষেত্র এগিয়ে চলেছে।”

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories