Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বড় খবর:মধ্যশিক্ষা পর্ষদের নতুন সভাপতি রামানুজ গঙ্গোপাধ্যায়, সরানো হল কল্যাণময়কে

।।প্রথম কলকাতা।।

মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়কে। ওই পদে এলেন রামানুজ গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টেট ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার ছিলেন। বদল আরও বেশ কিছু পদেও।৯ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী এক কমিটির দায়িত্বে চলবে পর্ষদের কাজ। শিক্ষা দফতর বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছে, আগামী এক বছরের জন্য মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি থাকবেন রামানুজ। সভাপতি ছাড়াও মধ্যশিক্ষা পর্ষদের আরও বেশ কয়েক জন আধিকারিক বদল করেছে শিক্ষা দফতর। মূলত নয় সদস্যের কমিটি গঠন করেছে রাজ্য।

কল্যাণের বিরুদ্ধে শিক্ষক ও কর্মী নিয়োগ মামলায় দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। তার নির্দেশে বেআইনি নিয়োগপত্র তৈরি হয়েছিল বলে জানায় কলকাতা হাই কোর্টের নির্দেশে তৈরি প্রাক্তন বিচারপতি রঞ্জিতকুমার বাগের কমিটি। এই মামলায় কল্যাণকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সিবিআই। তার পরও পর্ষদের সভাপতি পদে তিনি থাকায় প্রশ্ন ওঠে বিভিন্ন মহলে। অবশেষে কল্যাণকে সরিয়ে দিল নবান্ন। কল্যাণ গঙ্গোপাধ্যায়ের মেয়াদ শেষ হয়েছে ২১ জুন। পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে হয়তো তার মেয়াদ আরও বাড়ত। কিন্তু দুর্নীতির জালে তিনি যেভাবে জড়িয়ে পড়েছেন, তাতে নবান্ন আর তার মেয়াদ বাড়ানোর পথে হাঁটল না বলেই অভিজ্ঞ মহলের ধারণা।

কয়েকদিন আগে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সদ্য প্রাক্তন সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়ের খোঁজে পর্ষদ অফিসেই হাজির হয়েছিল সিবিআই টিম। কিন্তু তিনি সেখানে ছিলেন না। কল্যাণময়কে না পেয়ে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের অ্যাডমিন পারমিতা রায়কে তারা জিজ্ঞাসাবাদ করে দীর্ঘক্ষণ। পরে আরও পাঁচ সদস্যের একটি দল সল্টলেকের মধ্যশিক্ষা পর্ষদের অফিসে যায়। সিবিআই সূত্রে খবর, কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়ের দুপুর দুটোর মধ্যে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের অফিসে আসার কথা থাকলেও তিনি আসেননি। পরবর্তী সময়ে বিকেলে সিবিআই আধিকারিকের আরও একটি দল কল্যাণবাবুর কাদাপাড়ার বাড়িতে যায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories