Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

পদ্মা সেতু : নির্মাণে ২০টি দেশের মেধা , কেন এই সেতু নিয়ে এত হৈচৈ ? রইল প্রচুর অজানা তথ্য

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

মাঝে আর মাত্র একটা দিন বাকি । তারপর বাংলাদেশের বহু মানুষের স্বপ্ন আর প্রত্যাশা নিয়ে উদ্বোধন হবে পদ্মা সেতু। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে প্রত্যাশিত উদ্বোধনের অপেক্ষায় অনেকেই। সারা বিশ্বকে বাংলাদেশ পদ্মা সেতু বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে এত বড় একটি সেতু তৈরি করা একেবারেই সহজ ছিল না। এই সেতু নির্মাণের পিছনে জড়িয়ে রয়েছে প্রায় ২০টি দেশের মেধা। আজকের এই প্রতিবেদনে জেনে নিন পদ্মা সেতু সম্পর্কে কিছু মজাদার এবং অজানা-গুরুত্বপূর্ণ তথ্য।

পদ্মা সেতুর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে প্রায় ২০টি দেশের মেধা। সেই তালিকায় রয়েছে নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডস, কানাডা, জার্মানি, সিঙ্গাপুর ,জাপান, ইতালি ,ডেনমার্ক, কলম্বিয়া, ফিলিপাইন, ভারত,দক্ষিণ আফ্রিকা এবং বাংলাদেশ।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন , জনগণের দেওয়া সাহসেই আজ পদ্মা সেতু মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে । পদ্মা সেতু তৈরির যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০১৪ সালের ডিসেম্বরের ৭ তারিখে।

এই সেতুটি তৈরি হয়েছে প্রায় ২৭৫৭ দিন ধরে। ঘন্টা হিসেবে প্রায় ৬৬,১৬৮ ঘন্টা। পদ্মা সেতুতে ব্যবহৃত হয়েছে প্রায় ২৯৪টি স্টিলের পাইপ। এক একটি পাইপের ব্যাস প্রায় ৩ মিটার এবং সর্বোচ্চ প্রায় ১২৫.৫ মিটার দৈর্ঘ্যের। নদীর গভীরে এই পাইপের দৈর্ঘ্য রয়েছে প্রায় ৪২ তলা ভবনের উঁচু। বলা হচ্ছে পদ্মা সেতুর পাইলের গভীরতা প্রায় চারটি এভারেস্টের উচ্চতার সমান। পদ্মা সেতুতে ব্যবহার করা হয়েছে প্রায় ১৪০টি স্প্যান যার প্রতিটি ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের। সেতুতে ব্যবহৃত স্প্যানের মত দৈর্ঘ্য প্রায় ৬.১৫ কিলোমিটার। পদ্মা সেতু তৈরিতে ভূমি অধিগ্রহণ হয়েছে প্রায় ২,৬৯৩.২১ হেক্টর জমি।

পদ্মা সেতুর সাথে অন্যতম আরেকটি আকর্ষণীয় বিষয়বস্তু হল পদ্মা সেতুর জাদুঘর। এই জাদুঘর থাকবে পদ্মা সেতু নির্মাণে অক্লান্ত পরিশ্রম করে গিয়েছেন যে শ্রমিক ও প্রকৌশলীরা, তাদের ছবি। পাশাপাশি এই জাদুঘরে থাকবে প্রায় ১৪০০টি প্রজাতির প্রাণী। জাদুঘরে সংরক্ষণের জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল প্রায় ২৩৬৫টি প্রজাতির প্রাণীর। এই জাদুঘরে থাকা বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণীর মধ্যে অর্ধেকের বেশি রয়েছে পদ্মা নদী অববাহিকার প্রাণী। বাদবাকি গুলি রয়েছে দেশের অন্যান্য এলাকা থেকে সংগৃহীত। সবচেয়ে বেশি পরিমাণে রয়েছে মাছের প্রজাতি । এই জাদুঘরে আপনি দেখতে পাবেন প্রায় ৩২৮টি রকমের মাছ। পাখির সংখ্যা রয়েছে প্রায় ১৭৭টি ।

এখানে বাংলাদেশের বিভিন্ন লুপ্তপ্রায় প্রজাতির প্রাণী খুঁজে পাবেন যেমন ঘড়িয়াল, মিষ্টি জলের ডলফিন , গন্ধগোকুল প্রভৃতি।আর একদিন মাত্র বাকি জোরকদমে চলছে পদ্মা সেতুর শেষ পর্যায়ের প্রস্তুতি। ইতিমধ্যেই আশঙ্কা করা হচ্ছে এই দিন নাশকতার কোন ঘটনা ঘটতে পারে। তাই কড়াকড়িভাবে নিরাপত্তা জারি করা হয়েছে। আবার অনেকে বিরোধীদল বিএনপির দিকে আঙুল তুলছে। সমালোচনা যাই থাকুক না কেন পদ্মা সেতু বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ভিত্তি মজবুত করতে চলেছে। পাশাপাশি দক্ষিণাঞ্চলের বহু জেলা অর্থনৈতিক দিক থেকে ঘুরে দাঁড়াবে এই পদ্মা সেতুর মাধ্যমে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories