Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

Malda: ঘুরতে যাওয়ার নাম করে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ নাবালিকাকে, গ্রেফতার অভিযুক্ত আত্মীয়

।। প্রথম কলকাতা।।

ঘুরতে নিয়ে যাবার বাহানায় এক পঞ্চম শ্রেণির নাবালিকাকে পাট ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করল তারই এক আত্মীয় । তারপর ওই অবস্থাতেই নাবালিকাকে সেখানে ফেলে রেখে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত যুবক। অবশেষে পরিবারের লোকজন তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করলে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন একটি পাট ক্ষেতের মধ্যে । খবর দেওয়া হয় পুলিশকে । তড়িঘড়ি নাবালিকাকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় গ্রামীণ হাসপাতালে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার কুশিদা গ্রাম পঞ্চায়েতের ভাটল গ্রামে।

পরিবার সূত্রে খবর, অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি নাবালিকাকে ঘুরতে নিয়ে যাবে বলে বাড়ি থেকে নিয়ে গিয়েছিল। যেহেতু অভিযুক্ত ওই যুবক নাবালিকার সম্পর্কে কাকা হয় এবং প্রতিবেশী সেই কারণে মেয়েকে তাঁর সঙ্গে যেতে দিয়েছিলেন তাঁরা । কিন্তু বেশ খানিকক্ষণ সময় পেরিয়ে যাবার পরেও মেয়ে বাড়িতে ফিরে না আসায় চিন্তিত হয়ে পড়েন পরিবারের সদস্যরা । তাকে খুঁজতে বের হন এলাকায় । সেই সময় এলাকার বেশ কিছু জষ জানান , ওই নাবালিকাকে নিয়ে অভিযুক্ত যুবককে সীমান্তবর্তী এলাকার একটি পাট ক্ষেতে যেতে দেখা গিয়েছিল। সেখানে গিয়ে খোঁজাখুঁজি করতেই রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায় নাবালিকাকে।

ওই নাবালিকার মায়ের কথায়, অভিযুক্ত যুবক সম্পর্কে তাঁর দেওর হন। তাই সে মেয়েকে ঘুরতে নিয়ে যাবে বললে একফোঁটাও সন্দেহ হয়নি তাদের । কিন্তু বেশ কিছু সময় পেরিয়ে যাবার পরে যখন মেয়ে বাড়ি ফিরে আসেনি তখন তাঁরা চিন্তিত হয়ে পড়েন । পরে জানতে পারেন যে প্রতিবেশী তথা আত্মীয় ওই যুবক তাঁর মেয়েকে ধর্ষণ করেছে । এই ঘটনায় অভিযুক্ত যুবকের যথোপযুক্ত শাস্তি দাবি জানান নির্যাতিতার মা।খবর দেওয়া হয় হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশকে। ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হন হরিশ্চন্দ্রপুর থানা আইসি এবং বিশাল পুলিশবাহিনী। পুলিশ সূত্রে খবর , অভিযুক্ত ওই যুবকের নাম সন্তোষ গোস্বামী ওরফে টিকিয়া ।

এই ঘটনার পর এলাকা ছেড়ে চম্পট দেয় সে কিন্তু তাকে খুঁজে বার করতে তাঁর মোবাইল নম্বর ট্র্যাক করতে শুরু করে পুলিশ। অবশেষে মোবাইল নম্বর ট্র্যাক করে বাংলা বিহার সীমান্তবর্তী অঞ্চলে খোঁজ মেলে ওই যুবকের । তাকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃত পুলিশের জেরার মুখে স্বীকার করে যে ওই নাবালিকাকে ধর্ষণ করেছে সে এবং গআ ঢাকা দিতে বিহারের দিকে পালানোর চেষ্টা করেছিল।এই ঘটনা প্রসঙ্গে কুশিদা গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান নুর আলম ওই অভিযুক্ত যুবকের উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছে ওই নির্যাতিতা নাবালিকা। ধৃতকে আজ চাঁচল আদালতে তোলা হয়েছে বলে জানা যায়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories