Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘শোভনের অভিমানের প্রাচীর ভেঙে গেছে’, নবান্ন থেকে বেরিয়ে মন্তব্য বৈশাখীর, কীসের ইঙ্গিত ?

।। প্রথম কলকাতা।।

নবান্নে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। যা থেকে তাঁদের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের জল্পনা তীব্র হয়েছে। বৈঠক শেষে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হলেন তাঁরা। যেখানে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, রাজনীতিতে এখনো অনেক কিছু দেখার আছে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের।

সংবাদমাধ্যমের সামনে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানান,” শোভন চট্টোপাধ্যায়ের এখনো রাজনীতিতে আরো অনেক কিছু দেবার আছে। শিগগিরই তিনি সে কাজ শুরু করবেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সম্পর্ক চিরকাল ভালো ছিল। মধ্যে একটা অভিমান হয়েছিল সেই অভিমানের প্রাচীর ভেঙে গেছে। আবার আমি আগের শোভনকে দেখতে পেলাম। দিদির ওর প্রতি স্নেহ আমি আগেও দেখেছি। দিদি যে সিদ্ধান্ত নেবেন, সেই অনুযায়ী কাজ হবে।”

সাংবাদিকেরা তাঁকে প্রশ্ন করেছিলেন, তবে,কি একুশে জুলাইয়ের মঞ্চে তৃণমূলে যোগদান করবেন তাঁরা? এর উত্তরে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, “সেটা আমি জানি না। সেটা সময়মতো জানা যাবে। তবে এটা ঠিক, বিজেপি থেকে বেরিয়ে এসেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। শোভন চট্টোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক স্বত্বাকে দিদি এখনো স্নেহ করেন।”

সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেছিলেন, তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের পথে কি বাধা হয়ে দাঁড়াবেন রত্না চট্টোপাধ্যায়? এর উত্তরে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, “এই নামটা আমাদের কাছে করবেন না। আমার দিদির কাছে এসেছি।”
তিনি কবে তৃণমূলে ফিরছেন? এই প্রশ্নের উত্তরে শোভন চট্টোপাধ্যায় জানান, “রাজনৈতিক সচেতন একটা রাজ্যে সবকিছুর চিন্তা ভাবনা থাকে। তার বহিঃপ্রকাশ করা সময়ের ব্যাপার।”

তিনি আরও জানান, “মমতা দির সঙ্গে দেখা করতে নবান্নতে হয়তো এতদিন বাদে এলাম। কিন্তু দিদির সঙ্গে দেখা কথা আগেও হয়েছে বিভিন্নভাবে। মমতাদির চিন্তা, ভাবনা, ইচ্ছাকে বাস্তবায়িত করা আমার কর্তব্য বলে আমি মনে করেছি। আমার রাজনৈতিক জীবন সবটাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রিক।”

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories