Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

পুরুষ থেকে স্ত্রী হতে পারে ইলিশ, এই মাছের এত স্বাদ কেন ? রহস্যময় জীবনচক্র ভাবাবে

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

বর্ষা মানেই বাঙালির পাতে ধোঁয়া ওঠা গরম ভাত আর তার সাথে ইলিশ। এই সময় বাঙালি ইলিশ নিয়ে এক কথায় মেতে ওঠে । ইলিশের নানান পদ বাঙালির রসনা তৃপ্তি করে, কিন্তু একবারও ভেবে দেখেছেন এতো সুস্বাদু কীভাবে হয় ইলিশ মাছ ? অন্যান্য মাছ থাকতে ইলিশ কেন বাংলাদেশের জাতীয় মাছ হিসেবে জায়গা করে নিল ? কেন বাঙালি হাপিত্যেশ হয়ে ইলিশের জন্য অপেক্ষা করে? কেনই বা ইলিশের নাম শুনলে জিভে জল আসে ? আসলে এর পিছনে রয়েছে রহস্যময় ইলিশের জীবনচক্র । যা আপনাকে ভাবাবে। আজকের এই প্রতিবেদনে জেনেনিন ইলিশ সম্পর্কে প্রচুর অজানা কথা।

সর্বদা সাঁতার কাটে

মাছের রাজা ইলিশ পছন্দ করেন না তা হয়তো হাতে গোনা মাত্র কয়েকজন। এই মাছ স্বাদে যেমন ভরপুর তেমনই এদের জীবন চক্র রহস্যে ভরা। ডিম পাড়ার সময় বঙ্গোপসাগর থেকে প্রায় ১২০০ থেকে ১৩০০ কিলোমিটার সাঁতার কেটে এরা নদীতে আসে। তবে জানেন কি, এই সময় তারা কিছুই খায় না। তারা সর্বদা জলের মধ্যে সাঁতার কাটতে থাকে, বিন্দুমাত্র থেমে থাকে না। এমনকি তারা ডিম পাড়ে সাঁতরাতে সাঁতরাতে। আসলে ইলিশ মাছের খাদ্য বিভিন্ন ধরনের জলজ ক্ষুদ্র প্রাণী। সেগুলি যেহেতু জলের মধ্যে বিচরণ করে বেড়ায় তাই খাদ্যের সন্ধানে সর্বদা সাঁতার কাটতে হয়।

ভাবলে আশ্চর্য হবেন যে, স্ত্রী এবং পুরুষ ইলিশ মাছের কখনোই যৌন মিলন হয় না। আসলে পুরুষ ইলিশ মাছের কোন জননাঙ্গ নেই। এমনকি বিশেষজ্ঞরা ছাড়া স্ত্রী আর পুরুষ ইলিশ মাছের পার্থক্য সাধারণ মানুষ বুঝতে পারেন না। সাধারণত পেট ভর্তি ডিম দেখলেই স্ত্রী ইলিশ মাছ চিহ্নিত করা হয়। কিন্তু পুরুষ আর স্ত্রী ইলিশ মাছের মধ্যে ডিম ছাড়া পার্থক্য বোঝা অত্যন্ত কঠিন। বিশেষজ্ঞদের মতে, পুরুষ ইলিশ মাছ স্ত্রী ইলিশ মাছের থেকে কম আকর্ষণীয় এবং এদের দেহের ঔজ্জ্বল্য অনেকটা কম।

পুরুষ থেকে স্ত্রী হতে পারে ইলিশ !

প্রজননের সময় উজান পেরিয়ে নোনাজল থেকে মিষ্টি জলে ইলিশ মাছ আসে। তারপর ফোমের মত পুরুষ ইলিশ শুক্রাণু ছেড়ে দিয়ে চলে যায় ।সেখানে ডিম্বাণু নিষিক্ত করে স্ত্রী ইলিশ। এক একটি স্ত্রী ইলিশ মাছ প্রায় ২০ লক্ষ পর্যন্ত ডিম পাড়তে পারে। তারপর ডিম পেড়ে ইলিশ ফিরে যায় নোনা জলে। মা ইলিশের পিছুপিছু সমুদ্রের দিকে পাড়ি জমায় বাচ্চা ইলিশরা। বহু প্রজাতির ইলিশ মাছ আছে, তবে এর মধ্যে চন্দনা প্রজাতির ইলিশ মাছের বৈশিষ্ট্য একেবারেই বিস্ময়কর । এই প্রজাতির পুরুষ ইলিশ স্ত্রী ইলিশে রূপান্তরিত হতে পারে।

ইলিশ মাছের এত স্বাদ কেন ?

আসলে সমুদ্র থাকাকালীন এদের শরীরে প্রচুর পরিমাণে আয়োডিন জমা হয়। তারা মিষ্টি জলে চলে আসলে তাদের শরীরের অন্যান্য খনিজ ও লবণের পরিমাণ কমতে থাকে, পাশাপাশি বাড়তে থাকে স্বাদ। পদ্মার ইলিশ অত্যন্ত জনপ্রিয়। ইলিশের জন্য বাংলাদেশ অত্যন্ত বিখ্যাত । বাংলাদেশে প্রায় তিন ধরনের ইলিশ পাওয়া যায়। যার মধ্যে সুস্বাদু ইলিশ মাছ পাওয়া যায় চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনা নদীর মিলনস্থলে। আসলে এখানে প্রায় তিনটি নদী এসে মিলেছে , সেই তিনটি নদীর মিষ্টি জকের প্রভাবে এখানকার ইলিশের শরীরে যে চর্বি জমা হয় তা বাড়তি স্বাদ যোগ করে, যা রসনা তৃপ্তি করে বাঙালিদের। পাশাপাশি স্বাদ ও পুষ্টির বিচারে মেঘনা নদীর মোহনা থেকে ধরা ইলিশ বিশ্ব বিখ্যাত, আর এই নদীর মোহনা থেকেই সব থেকে বেশি পরিমাণে ইলিশ পাওয়া যায়।

অন্যান্য মাছ থেকে একেবারেই আলাদা

ইলিশ মাছ সাধারণ একটি মাছ নয়, এরা অত্যন্ত দক্ষ সাঁতারু হয়ে থাকে। প্রায় ১২০০ থেকে ১৩০০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে এরা মিষ্টি জলে ডিম পাড়তে আসে । তবে আলো এবং তাপমাত্রায় এরা বেশ সংবেদনশীল । তাই হয়ত ইলিশ মাছ ধরে ডাঙায় তোলার কিছুক্ষণের মধ্যেই তারা মারা যায়। আসলে ইলিশ মাছ তাপ এবং আলো একেবারেই সহ্য করতে পারে না । যদিও এক্ষেত্রে কিছু ব্যতিক্রম রয়েছে। কিছু কিছু ইলিশ মাছ ঘন্টাখানেক বেঁচে থাকে, যেমন মেঘনা নদীর ইলিশ। এর পেছনে আরেকটি অন্যতম কারণ আছে । অন্যান্য মাছের শরীরের যে পটকা নামক জিনিসটি থাকে তা অতিরিক্ত অক্সিজেন ধরে রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু ইলিশের দেহে এই পটকা নেই, তাই জল থেকে তুলতেই অক্সিজেনের অভাব হতেই তারা মারা যায়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories