Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

Birbhum: একই পরিবারের তিন সদস্যের আত্মহত্যা! সুইসাইড নোটে অভিযোগ সাতজনের বিরুদ্ধে

1 min read

। প্রথম কলকাতা।।

বাবা-মা এবং ছেলে, একই পরিবারের এই তিন সদস্য একইসঙ্গে আত্মহননের পথ বেছে নেন। জানা যায় বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেন এই তিন সদস্য । ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের পাড়ুই থানার মহুলা গ্রামে । কিন্তু আত্মঘাতী হওয়ার নেপথ্যে কারণ কী ছিল? কী এমন ঘটেছিল যার জন্য সন্তানসহ মা বাবাকে আত্মহত্যা করার সিদ্ধান্ত নিতে হয়? বর্তমানে পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের হাতে একটি সুইসাইড নোট আসে, যেখানে সাত জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে বলে খবর । বর্তমানে স্বামী স্ত্রী সহ তাদের ৬ বছরের সন্তানের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, মহুলা গ্রামের বাসিন্দা প্রশান্ত পাত্র। দীর্ঘদিন ধরে তাঁর স্ত্রী তৃপ্তি পাত্রর সঙ্গে তাঁর মা-বাবার সম্পর্ক খুব একটা ভালো ছিল না। প্রায়ই বাড়িতে অশান্তি লেগেই থাকত। গতকাল রাতে খাওয়া-দাওয়া সেরে যে যার মত ঘরে চলে যায়। কিন্তু মঙ্গলবার অনেক বেলা হয়ে গেলেও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি পাত্র দম্পতি এবং তাদের ছেলের । যার ফলে স্বাভাবিকভাবেই পরিবারের সন্দেহ হয় । আর তারপর পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ডাকাডাকি করতে শুরু করেন তাদের। অবশেষে ঘরে ঢুকতেই যে দৃশ্য তাঁরা দেখতে পান তাতে হতবাক হয়ে যান সকলেই।

ঘর থেকে উদ্ধার করা হয় প্রশান্ত সহ তাঁর স্ত্রী এবং ছেলে দীপের নিথর দেহ । খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায় বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ জানতে পারেন যে , বিষ পান করার পরে তৃপ্তি তাঁর দাদা কাশীনাথ ঘোষকে ফোন করেছিলেন । তিনি পারিবারিক অশান্তির কথাও জানিয়েছিলেন।

এমনকি সুইসাইড নোট লিখে তিনি কোথায় রেখে গিয়েছেন সেই খবরও আগেভাগেই দিয়ে রেখেছিলেন দাদাকে। তৃপ্তির পরিবারের দাবি , শ্বশুর বাড়ির সদস্যদের সঙ্গে বারবার অশান্তির জেরে বাধ্য হয়ে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে ওই তিনজন।আপাতত পুলিশ সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে । সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে তাঁর শ্বশুর-শ্বাশুড়ী সহ ৭ জনের নাম। বর্তমানে তাদের পরিবারের সদস্যদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে । ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পুলিশের হাতে আসলে বিষয়টি আরও স্পষ্ট হবে বলে অনুমান পুলিশের।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories