Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘অগ্নিপথের বিরুদ্ধে যা চলছে তা সেনাবাহিনীর উপরে আক্রমণ’, যোগ দিবসে মন্তব্য শুভেন্দুর

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

আজ আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের দিনে সূর্যপ্রণাম করে বিশেষ অনুষ্ঠানে যোগদান করলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। হাওড়ার বাপু উদ্যানে চললো এই অনুষ্ঠান। যেখানে শুভেন্দু অধিকারী ছাড়াও অগ্নিমিত্রা পল, মিহির গোস্বামী সহ বিজেপির একাধিক বিধায়ক ও অন্যান্য নেতা-কর্মীরা যোগদান করলেন। শুভেন্দু অধিকারী জানান, যোগাভ্যাস সকলের করা উচিত। কারণ এতে রোগব্যাধি দূর হয়। এরপর গণমাধ্যমে বক্তব্য রাখলেন তিনি। যেখানে উঠে এলো অগ্নিপথ প্রসঙ্গ। বিরোধীদের একহাত নিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা।

অগ্নিপথ প্রকল্প প্রসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী জানান, “অগ্নিপথ, অগ্নিবীর আমাদের সেনাবাহিনীর সৌন্দর্য বৃদ্ধি করবে। কিছু যুবক প্রথমে বিভ্রান্ত হয়েছিলেন, ধীরে ধীরে ধীরে বুঝতে পারছেন। এটা এনসিসির মত। পারিশ্রমিক যেমন আছে, তেমনি দেশসেবার এত বড় সুযোগ। ১৭ বছর বয়স যখন পড়াশোনার পর পাড়াতে বসে, ক্লাব, প্রতিষ্ঠানে আড্ডা দেওয়ার সময়, সেই সময় দেশসেবার সুযোগ। এর থেকে বড় আর কিছু হতে পারে না। সবাই স্বীকার করতে শুরু করেছে। চার বছর পর কোথায় যাব? পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া প্রত্যেকটা রাজ্য সরকার নিজেদের পুলিশ বাহিনীতে সংরক্ষণ ঘোষণা করেছেন অগ্নিবীর জন্য।”

“কর্পোরেট হাউসগুলো, সমস্ত বড় বড় কর্পোরেট হাউস যারা লক্ষ লক্ষ নিয়োগ করে থাকে, তারাও সংরক্ষণের কথা বলেছে, ভারত সরকারের আধাসেনায় ১০% সংরক্ষণের কথা বলা হয়েছে। শুধু তাই নয়, প্রতিবছর ৫০০০০ নিয়োগ হবে সেনাবাহিনীতে। সেটা এর সঙ্গে জড়িত নয়। যে নিয়োগ হয়, সেই নিয়োগ চলবে, এটা একটা অতিরিক্ত প্রাপ্তি। দেশের যুবকেরা বুঝতে শুরু করেছেন। সবই এক তরফা হয়না। নূপুর শর্মা ইস্যু নিয়ে চারদিন ধরে যা করা হয়েছে বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গে। সব জিনিস এইভাবে দেশবিরোধী কাজ করা না। না বুঝে শুধুমাত্র রাজনৈতিক স্বার্থ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী, দেশকে অপবাদ দেওয়ার চেষ্টা কোন দেশে হয় না। ইজরায়েলে হয় না শুধু ভারতে হয়।”

বিরোধীদের একহাত নিয়ে তাঁর বক্তব্য, “কিছু লোক যারা মোদীজির রাষ্ট্রবাদ, উন্নয়ন, জনপ্রিয়তা, সমর্থনের কারণে কিছু করতে পারছে না, তারাই এসব কাজ করে। কখনো সিএএ, কখনো নূপুর শর্মার নামে, কখনো অগ্নিপথের নামে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার চেষ্টা করে। জনপ্রিয়তা, দক্ষতা, সেবায় কোনটাতে মোদীজির সঙ্গে পেরে ওঠেন না। এটা তাদের দুর্ভাগ্য। যা আমাদের দেশকে ভোগ করতে হচ্ছে। হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি নষ্ট করে দিল কিছু লোকজন। রেল কোনো দলের নয়, রেল স্টেশন, রেললাইন কোনো দলের নয়।”

তিনি আরও জানান, “অগ্নিপথের বিরুদ্ধে যা চলছে তা সেনাবাহিনীর উপরে আক্রমণ। দেশভক্ত, রাষ্ট্রবাদী শক্তিরা এটা করছে না। তিনি সিমির ইমরানকে সাংসদ করেছেন, জামাতের সিদ্দিকুল্লা চৌধুরীকে মন্ত্রী করেছেন, রাষ্ট্রবাদ যদি শিখতে হয়, তবে নরেন্দ্র মোদীর কাছে যেতে বলুন।”

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories