Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

সিবিআইয়ের তদন্ত নাকি সিটেই আস্থা? আনিস মামলায় আজ রায়দান আদালতের

।। প্রথম কলকাতা।।

ছাত্রনেতা আনিস খানের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হয়েছে পুলিশকে। আনিসের পরিবারের তরফ থেকে বারবার দাবি উঠেছে সিবিআই তদন্তের । কারণ তাঁরা রাজ্য পুলিশের গঠন করা সিটের ওপর ভরসা রাখতে নারাজ। সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁরা। আজ আনিস মৃত্যু মামলায় রায় ঘোষণা করবে হাইকোর্ট । এই মামলায় সিবিআই তদন্ত করা হবে নাকি সিট এই তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাবে সেই বিষয়ে চূড়ান্ত রায় দেবেন আজ সকাল সাড়ে দশটায় বিচারপতি রাজশেখর মান্থা।

আনিসের পরিবারের তরফ থেকে অভিযোগ ওঠে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের ১৮ তারিখে আচমকাই মাঝরাতে আনিসের বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ । কোন এক অজ্ঞাত কারণে তাদের বাড়িতে পুলিশ সহ সিভিক ভলেন্টিয়ার এসে উপস্থিত হয় এবং তারপর আনিস খানকে দোতলা থেকে ঠেলে ফেলে দেওয়া হয় নিচে। এই ঘটনায় তদন্ত করার জন্য রাজ্য পুলিশের তরফ থেকে সিট গঠন করা হয়েছিল কিন্তু আনিসের পরিবার প্রশ্ন তোলেন যেখানে পুলিশ নিজে এসে তাদের ছেলেকে পরিকল্পনা করে খুন করেছে , সেখানে কীভাবে পুলিশ সঠিক তদন্ত করতে পারে?

চলতি মাসের ৭ তারিখে কলকাতা হাইকোর্টে আনিস মৃত্যু মামলার শুনানি ছিল। তবে মামলার শুনানি শেষে চূড়ান্ত রায়দান স্থগিত রাখে কলকাতা হাইকোর্ট। আদালতের তরফ থেকে নির্দেশ দেওয়া হয় আনিস খানের বাবা এবং মায়ের গোপন জবানবন্দি পেশ করার জন্যে। আর তারপরে বিচারপতি এই মামলার রায় দান করবেন বলে জানিয়েছিলেন। মামলাকারীর পক্ষের আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য জানিয়েছিলেন যে, আদালত পুলিশের উপর দায়িত্ব দিয়েছিল এই তদন্তের।

কিন্তু পুলিশের তরফ থেকে যে রিপোর্ট আদালতে পেশ করা হয়েছিল সেখানে কার নির্দেশে ওই দিন রাতে আনিসের বাড়িতে পুলিশ হানা দিয়েছিল সেই নাম উল্লেখ নেই । কাজেই এক কথায় আদালত পুলিশের উপর আস্থা রাখলেও পুলিশ আদালতের মর্যাদা রাখেনি। অন্যদিকে, যে পুলিশ আধিকারিকের নির্দেশ অনুযায়ী এই কাজ হয়েছিল তাকে চিহ্নিত করা হয়নি। যার ফলে তাঁর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। ওই দিন চূড়ান্ত রায়দান স্থগিত রাখা হয়। তবে আজ আদালতের তরফ থেকে আনিস মৃত্যু মামলায় তদন্ত কোন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার হাতে যাবে নাকি রাজ্য পুলিশই তদন্ত করবে সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories