Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বাচ্চাদের মন ভালো করার বিশেষ টিপস , আপনিই হবেন শিশুর প্রিয় বন্ধু

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

বর্তমানে অনেকেই আছেন যারা বাচ্চাদের বাইরে ঘুরতে নিয়ে যেতে চান না । যদিও তার পিছনে বেশ কয়েকটি কারণ আছে। একে করোনা আবহ, তার উপর অনেকেই ভাবেন বাইরের দূষণ বাচ্চার শরীরে ক্ষতি করতে পারে। তাই ইনডোর গেমে বাচ্চাদের ব্যস্ত রাখেন। আবার অপরদিকে অনেকেই বাচ্চাদের সাথে সময় দিতে পারেন না । আবার অনেকে ভেবে পান না, বাচ্চাদের সাথে ঠিক কীভাবে খেলবেন । অথচ ছোট থেকেই বাচ্চাদের মানসিক স্বাস্থ্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যার সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে থাকে তাদের মন ভালো করার বিষয়টি। আজকের প্রতিবেদনে জানবেন আপনার বাচ্চার মন ভালো করার বিশেষ কয়েকটি টিপস , যার মাধ্যমে আপনার বাচ্চার মেধার বিকাশ ঘটবে। আসলে যখন একটি শিশু ভূমিষ্ঠ হয় তার সাথে সাথে এক মায়ের জন্ম হয়, যাকে সর্বদা খেয়াল রাখতে হয় বাচ্চার প্রতিটি বিষয় সম্পর্কে।

বাচ্চা মেধার বিকাশ ঘটাতে বাচ্চাদের সাথে কথা বলা অত্যন্ত জরুরী । আপনার শিশুর যদি বয়স অনেক কম হয়, তাহলে তার সঙ্গে হাত নেড়ে নানান রকম অঙ্গভঙ্গি করে কথা বলুন। যদি বাচ্চা একটু বড় হয়, তাহলে ছোট ছোট বাক্য ব্যবহার করে তাকে গল্প বলতে পারেন।

বাচ্চাকে ঘরের মধ্যে সর্বদা আটকে রাখলে তা একেবারেই সঠিক হবে না । দরকার পড়লে বাড়ির সামনের রাস্তায় অন্তত আপনার শিশুকে নিয়ে একটু হাঁটুন । যতটুকু সময় বাইরে থাকবেন ততটুকু সময় সে তার চারপাশের পরিবেশকে আরো ভালোভাবে বুঝতে পারবে , তার মনও ভালো থাকবে।

আপনার শিশুর খেলার সঙ্গী হতে হলে আপনাকেও অনেকটা শিশু হয়ে যেতে হবে অর্থাৎ নিজেকেও একটি বাচ্চা হিসাবে আপনার শিশুর কাছে উপস্থাপন করতে হবে । তাহলেই আপনার সাথে খুব ভালোভাবে মিশে যাবে আপনার শিশু। আপনি তার সঙ্গে কাগজে আঁকতে পারেন, তার সঙ্গেই ইনডোর গেমের কম্পিটিশন করতে পারেন । সর্বদা খেয়াল রাখতে হবে এইসবের মাধ্যমে কীভাবে আপনার শিশুর মেধার বিকাশ ঘটানো যায়।

বাচ্চা মন ভালো রাখতে প্রথমেই বেশ কয়েকটি সিনেমা খুঁজে রাখুন। যেগুলি একটি বাচ্চার মানসিক বয়সের জন্য একেবারেই উপযোগী। দিনের অল্প কিছু সময়ের জন্য আপনার শিশুর সঙ্গে সেই সিনেমা পাশাপাশি বসে দেখুন।

আসলে শিশুর মন ভালো রাখতে গেলে আপনাকেও তার বন্ধু হয়ে উঠতে হবে , যাতে মন খুলে তার সমস্ত কথা আপনাকে বলে । আপনার ঘরের ছোট্ট জায়গায় তার প্লেগ্রাউন্ড বানিয়ে দিন। তা বলে এই নয়, স্মার্টফোনে কার্টুন দেখতে দিলেন বা টিভির সামনে বসিয়ে দিলেন। অনেক বাবা-মা আছেন যারা গাদা গাদা খেলনা এনে বাড়িতে জড়ো করেন। আসলে সেগুলির কোন প্রয়োজন নেই। অল্প কয়েকটি খেলনাতেই তাদের মন ভালো রাখার চেষ্টা করুন। অনেক মা আছেন যারা কাজের মধ্যে প্রচুর ব্যস্ত থাকেন , কাজ করতে করতেই শিশুকে নানান ধরনের ছোট্ট মজাদার গল্প শোনান। আপনি যে কাজগুলি করছেন সেগুলো মজা করে তার কাছে উপস্থাপন করুন।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories