Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

অন্য বিষয়ে লেটার মার্কস, অথচ ভুল আমব্রেলা বানান ! সোশ্যাল মিডিয়ায় দাপাচ্ছে ভাইরাল গান

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

গত দু-এক দিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়া খুললেই নানান প্ল্যাটফর্মে দেখা যাচ্ছে আমব্রেলা গান। রীতিমত তুমুল বেগে ভাইরাল হয়েছে। শুধু তাই নয়, গানটিকে কেন্দ্র করে দেখা দিয়েছে হাসির রোল। বহু মানুষ তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছেন। আবার অনেকেই এই বিষয়টি একেবারেই মেনে নিতে পারছেন না। চারিদিক থেকে নানান ধরনের মন্তব্য শোনা যাচ্ছে। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরাদের মধ্যে কয়েকজন ইংরেজিতে ফেল করেছিলেন। তার জন্য তারা রাস্তায় বসে অবরোধ করেন।

তাদের দাবি একটাই , তারা অন্যান্য বিষয়ে লেটার মার্কস পাওয়া সত্ত্বেও ইংরেজিতে ফেল করেন। তাদের পাশ করাতে হবে অথচ তাদেরকে যখন সাংবাদিকরা আমব্রেলা বানান বলতে বলেন, তখন বেরিয়ে আসে একেবারে উদ্ভট বানান। যা একজন উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়ার ক্ষেত্রে একেবারেই আশা করা যায় না । শুধু একজন নয়, রাজ্যের বহু জায়গায় দফায় দফায় উচ্চ মাধ্যমিকে পাশ করিয়ে দেওয়ার জন্য চলছে আন্দোলন।

অনেকেই এইচএস- এর পুরো কথা জানেন না। আবার উচ্চ মাধ্যমিক বানান অনেকে বাংলাতে পর্যন্ত বলতে পারছেন না। কয়েক জনকে প্রশ্ন করলে বলছেন, মাথা কাজ করছে না, তাই এখন বানান বলতে পারবেন না। আবার এমন অনেকে আছেন যারা উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী নন, শুধুমাত্র হুজুগে পড়ে কোথাও বিক্ষোভ করছেন আবার কোথাও বা বন্ধুদের সাহায্য করতে আন্দোলনে পাশে দাঁড়িয়েছেন। শুধু পরীক্ষার্থী কেন , অভিভাবক মহল থেকেও একই ধরনের প্রতিক্রিয়া উঠে আসছে ।

এক অভিভাবক দাবি করেছিলেন, তার মেয়ে ইংরেজিতে ফেল করতেই পারেন না । কারণ তার মেয়ের যিনি বান্ধবী তিনি বাংলায় মেসেজ করেও ইংরেজিতে পাশ করে গেছেন। স্বাভাবিকভাবেই উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশের পরেই এই বিষয়টি নিয়ে কম জল ঘোলা হচ্ছে না। কিন্তু এখনও পর্যন্ত জুন মাসের ২০ তারিখ না এলে এই বিষয়ে কিছুই করা যাবে না। কারণ ২০ তারিখ উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা মার্কশিট এবং সার্টিফিকেট পাবেন, তারপরেই রিভিউ করা যাবে খাতা।

তবে যেসব পরীক্ষার্থীরা ফেল করেছেন তাদের পাশের দাবি এবং সামান্য বানান বলতে গিয়ে যে ভাবে হোঁচট খাচ্ছেন তা দেখে বর্তমান শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে উঠছে নানান প্রশ্ন। অনেকেই মনে করছেন তারা প্রায় দু’বছর লকডাউনের কারণে সেভাবে পড়াশোনার সুযোগ পাননি। কারণ অনেকেরই কাছে পড়াশোনার জন্য যোগ্য পরিবেশ ছিল না । আবার একদল মনে করছেন , করোনা আবহের কারণে মাত্র দু’বছর মত স্কুল বন্ধ ছিল, কিন্তু আমব্রেলা বানান শিক্ষার প্রারম্ভিক মুহূর্তেই শেখানো হয়।

নেট পাড়ায় যে পরীক্ষার্থী আমব্রেলা বানান ভুল করেছিলেন সেই ভুল বানানটিকে নিয়ে এডিট করে গান বানানো হয়েছে । সেই গান বহু নেটিজেনদের মন কেড়েছে। অনেকেই বাহবা দিচ্ছেন, আবার অনেকে উপভোগ করছেন। আবার অনেকে এই গানের তীব্র বিরোধিতা করছেন।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories