Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

আচমকাই বাড়ল বুকের যন্ত্রণা, বর্ধমানের যাওয়ার পথে আনারুলকে ফেরানো হল রামপুরহাটে

।। প্রথম কলকাতা।।

বগটুইকাণ্ডে গ্রেফতার করা হয় অন্যতম অভিযুক্ত আনারুল হোসেনকে। এই তৃণমূল নেতাকে গ্রেফতারের পর থেকে জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে বুকে ব্যথা অনুভব করায় সোমবার তাকে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়েছিল। তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে তাকে স্থানান্তরিত করা হয় বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে । জানা যায় উচ্চ রক্তচাপ এবং সুগার সহ তাঁর একাধিক শারীরিক সমস্যা রয়েছে। তবে এদিন তাকে রামপুরহাট থেকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়ার পথে মাঝ রাস্তা থেকেই ফিরিয়ে নিয়ে আসতে হয় রামপুরহাটে।

কারণ এদিন মাঝপথে তিনি আচমকা ফের অসুস্থ বোধ করতে থাকেন । তাঁর বুকের যন্ত্রণা বেড়ে যায় এবং শরীরে স্বাভাবিক ঘাম হওয়ায় অস্বস্তি শুরু হয় তাঁর। যার ফলে তাকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের বদলে আবার ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয় রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। এখানে এনে তাকে ভর্তি করা হয় ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে।

গত ২৫ শে মার্চ তাকে বগটুইকাণ্ডে গ্রেফতার করা হয়েছিল । তারপর জেল হেফাজতে থাকাকালীন তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাকে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । জানা যায় ব্লাড সুগার, ব্লাড প্রেসার একাধিক সমস্যা রয়েছে তাঁর ।যে কারণে আজ তাকে বর্ধমান মেডিক্যাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। বর্তমানে আনারুল হোসেন রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে ভর্তি থাকায় সেখানে কড়া পুলিশি পাহারার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, ২১ শে মার্চ বগটুইয়ের বড়শাল পঞ্চায়েতের উপপ্রধান ভাদু শেখ খুন হন দুষ্কৃতী আক্রমণে। তাকে বোমা মেরে খুন করা হয় বলে অভিযোগ। আর তার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই গ্রামের পরিস্থিতি একেবারেই বদলে যায় । প্রথমে গ্রামের চারদিকে বোমাবাজি চলে আর তারপর একাধিক বাড়িতে ঢুকে হত্যালীলা চালায় দুষ্কৃতীরা। নির্বিচারে কুপিয়ে খুন করা হয় বাড়ির সদস্যদের । আর তারপর পেট্রোল ঢেলে জ্বালিয়ে দেওয়া হয় বাড়িঘর শুদ্ধ সেই মানুষগুলিকে। আর এই ঘটনায় মূল অভিযুক্ত হিসেবে নাম উঠে এসেছিল তৃণমূল নেতা আনারুল হোসেনের।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories