Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

KMC:এবার কর্পোরেট ধাঁচে হবে কর আদায়! কোষাগারের হাল ফেরাতে নয়া উদ্যোগ KMC’র

।। প্রথম কলকাতা।।

বিগত দুই বছর করোনা সংক্রমনের ফলে সাধারণ মানুষের রুজি রোজগারে টান পড়েছিল। আয়ের উৎস চলে গিয়েছিল অনেকের। সেই জায়গায় পুরসভাকে কর প্রদান করা সম্ভব হয়নি তাদের পক্ষে । অন্যদিকে, পুরসভাও নাগরিককে সুবিধা দিয়েছিল। এই দু’বছর কর আদায় করার জন্য কোন রকম চাপ সৃষ্টি করা হয়নি। তবে বর্তমানে কলকাতা পুরসভার কোষাগারের হাল বেহাল। সেই পরিস্থিতি ফেরাতে এক নয়া উদ্যোগ গ্রহণ করল কলকাতা পুরসভা। বিজ্ঞপ্তি দিয়ে সেই বিষয়ে জানালেন পুরসভার কমিশনার বিনোদ কুমার।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী , একেবারে কর্পোরেটর ধাঁচে এবার কলকাতা পুরসভা আদায় করবে কর। বর্তমানে পৌরসভার সম্পত্তি কর বকেয়া প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা। এবার সেই বকেয়া সম্পত্তি কর আদায়ের জন্য তৎপর হয়েছে কলকাতা পুরসভা । বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে , যে সমস্ত জায়গায় সম্পত্তির পরিমাণ অনেক বেশি এবং তা বাকি রাখা হয়েছে, সেই জায়গায় এবার পৌঁছে যাবেন পুরসভার কোন পদস্থ আধিকারিক। অর্থাৎ কর আদায় করতে এবার দুয়ারে কড়া নাড়বে পৌরসভার আধিকারিকরা।

যে সমস্ত জায়গায় বর্তমানে এক কোটি বা তার থেকে বেশি বকেয়া কর রয়েছে সেই সমস্ত গ্রাহকদের বাড়িতে পৌঁছে যাবেন বিভিন্ন পদস্থ আধিকারিকরা কিংবা তাদেরকে ফোন করে যোগাযোগ করা হবে , জানার চেষ্টা করা হবে কেন এত পরিমান কর বকেয়া রাখা হয়েছে । সেই সমস্ত বিষয় খতিয়ে দেখে রিপোর্ট তৈরি করতে হবে এবং তা দিতে হবে পুরকমিশনার বিনোদ কুমারকে। প্রত্যেক মাসে এইভাবে আধিকারিকদের এই দায়িত্ব পালন করতে হবে বলে জানা গিয়েছে । অর্থাৎ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে বকেয়া করের পরিমাণ অনুযায়ী বিভিন্ন পদের কর্তারা গ্রাহকদের কাছ থেকে কর না দেওয়ার কারণ জানার চেষ্টা কিংবা কর আদায়ের চেষ্টা করবেন বলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সাধারণত সরকারি জায়গায় এই ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয় না। মূলত ব্যাঙ্ক কিংবা কর্পোরেট সংস্থাতেই বকেয়া টাকা আদায় করার জন্য আধিকারিকরা গ্রাহকদের বাড়িতে গিয়ে উপস্থিত হন কিংবা ফোন করে তাদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন । তবে বর্তমানে কলকাতা পৌরসভার বকেয়া সম্পত্তি করের পরিমাণ অনেক বেশি। অন্যদিকে কোষাগারের হাল খুব একটা স্বচ্ছল না থাকায় এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে পুরসভার তরফ থেকে। এবার থেকে বিভিন্ন পদস্থ আধিকারিকরা কর বাকি রাখার কারণ খতিয়ে দেখবেন এবং সেই রিপোর্ট পেশ করবেন পুর কমিশনারকে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories