Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

লখনউ সুপার জায়ান্টসের কাছে ২ রানে হেরে আইপিএল থেকে বিদায় কলকাতা নাইট রাইডার্সের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে শেষ ওভারের ক্লাইম্যাক্সে ২ রানে জয় ছিনিয়ে নিল লখনউ সুপার জায়ান্টস। সেই সঙ্গে চলতি আইপিএলে বিদায় ঘণ্টা বেজে গেল কলকাতা নাইট রাইডার্সের। কুইন্টন ডি ককের বিধ্বংসী শতরান ও কেএল রাহুলের অনবদ্য ইনিংসে ২১০ রানের ওপেনিং পার্টনারশিপ গড়ে তোলে লখনউ। যা আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ওপেনিং পার্টনারশিপ। সেই সঙ্গে চলতি আইপিএলের দ্বিতীয় দল হিসেবে প্লে-অফে পৌঁছে গেল লখনউ সুপার জায়ান্টস।

এদিন টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় লখনউ সুপার জায়ান্টস অধিনায়ক কেএল রাহুল। ওপেনিংয়ে কুইন্টন ডি কক ও কেএল রাহুল কলকাতা বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা করেন। তাঁদের ব্যাটিং তান্ডবে কোন প্রভাবই ফেলতে পারেনি কলকাতা নাইট রাইডার্স বোলাররা। ৭০ বলে ১৪০ রানের অপরাজিত বিধ্বংসী শতরান ও ৫১ বলে ৬৮ রানের অপরাজিত ইনিংসের উপর ভর নির্ধারিত ২০ ওভারে বিনা উইকেটে ২১০ রান তোলে লখনউ সুপার জায়ান্টস।

২১১ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ভেঙ্কটেশ আইয়ার ও অভিজিৎ তোমারের উইকেট হারায় কলকাতা নাইট রাইডার্স। এরপর ইনিংসের হাল ধরেন নীতিশ রানা ও অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার। ২২ বলে ৪২ রান করে কারিয়াপ্পা গৌতমের বলে আউট হন রানা। সাম বিলিংস এসে শ্রেয়সের ইনিংস গড়ার কাজে হাত লাগান। তবে ২৯ বলে ৫০ রানে শ্রেয়স আইয়ার আউট হতেই ধস নামে কলকাতার ব্যাটিংয়ে। ফিরে যান সাম বিলিংস (৩৬) ও আন্দ্রে রাসেলও (৫)। ১৫০ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বসে কেকেআর। এরপরই শুরু হয় রিঙ্কু সিং ও সুনীল নারিনের বিধ্বংসী ব্যাটিং। তবে ম্যাচের সমস্ত ক্লাইম্যাক্স লুকিয়ে ছিল শেষ ওভারে। শেষ ওভারে কলকাতা প্রয়োজন ছিল ২১ রান। মার্কোস স্টোয়ানিসকে প্রথম বলে চার ও পরবর্তী দুই বলে দুটি ছক্কা হাঁকান রিঙ্কু সিং। চার নম্বর বলে ২ রান নেন রিঙ্কু। জয়ের দোড়গোড়ায় পৌঁছে যায় কলকাতা নাইট রাইডার্স। শেষ দুই বলে দুটি উইকেট নিয়ে সেই আশায় জল ঢেলে দেন স্টোয়ানিস। দুর্দান্ত ক্যাচ নিয়ে রিঙ্কুকে (৪০) ফেরান ইভেন লুইস। শেষ বলে উমেশ যাদবকে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান স্টোয়ানিস। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২০৮ রান তোলে কলকাতা। তিনটি করে উইকেট দখল করেন মহসিন খান ও স্টোয়ানিস।

Categories