Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘ আমি খুব রাফ এন্ড টাফ ‘, নাম না করে সুকৌশলে পরেশকে বার্তা মমতার!

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

গতকাল সন্ধ্যায় কোচবিহারের মিটিং সেরে যখন জনসভার মঞ্চে ছিলেন রাজ্যের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারী, সেসময় তিনি জানতে পারেন গতকাল রাত আটটায় তাঁকে সিবিআই দপ্তরে হাজিরা দেবার নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতা অধিকারীকে বেআইনিভাবে একাদশ- দ্বাদশ শ্রেণীতে শিক্ষিকা হিসেবে নিয়োগ করার অভিযোগ রয়েছে। মেধা তালিকার নাম না থাকা সত্ত্বেও চাকরি দেওয়া হয়েছিল তাঁকে, এমন অভিযোগ উঠেছে। এরপর গতকাল পদাতিক এক্সপ্রেসে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দেন সকন্যা মন্ত্রী। কিন্তু শিয়ালদহ পৌঁছাবার আগেই ট্রেন থেকে উধাও হয়ে গেছেন মন্ত্রী। এরপর আজ মেদিনীপুরের কর্মীসভা থেকে দলকে বিশেষ বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানিয়ে দিলেন যে, অন্যায় করলে দলে কোন স্থান নেই।

নাম না থাকা সত্ত্বেও চাকরি পেয়েছিলেন পরেশ অধিকারীর কন্যা অঙ্কিতা অধিকারী। এই মামলার তদন্তে গতকাল সিবিআই তলব করে পরেশ অধিকারীকে। গতকাল এই ঘটনায় তীব্র অস্বস্তি বাড়ে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের। এ প্রসঙ্গে গতকাল বামপন্থী নেতা সুজন চক্রবর্তী জানিয়েছিলেন, চাকুরী নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে যে কেলেঙ্কারি হচ্ছে, তছনছ করে দিচ্ছে সব নীতি-নিয়ম। মেধাতালিকা প্যানেলের কোন মূল্য নেই। এভাবেই চলছে শিক্ষাদপ্তর। পরীক্ষায় পাস করলে চাকরি নেই, ফেল করলে চাকরি। কেন তিনি চাকরি পাচ্ছেন? কারণ তাঁর বাবা প্রভাবশালী।

এবার আজ মেদিনীপুরের কর্মীসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, “মনে রাখবেন কিছু লোক আছে সবাই নয়, এটা ০.১%-ও হবে না। এটা সব জায়গাতেই আছে। এরা মুখটা লুকিয়ে রেখে ভাবে আমার পেছনটা আর কেউ দেখতে পাচ্ছে না। আমার শরীরটা আর কেউ দেখতে পাচ্ছে না। কিন্তু শরীরটা তো সবটাই বাইরে আছে। মুখটা শুধু ঢাকা আছে। মনে রাখবেন যারা কুকর্ম করে, তাঁদের কিন্তু মানুষ চিহ্নিত করে। মানুষ কিন্তু তাঁদের ঘৃণা করে। মানুষ তাঁদের ভালোবাসে না। মানুষ যদি ভালো না বাসে আমি কেন ভালোবাসবো? আমি খুব রাফ অ্যান্ড টাফ। আমি সব কাজ করব তাঁদের জন্য, যারা মানুষের পাশে সর্বদাই থাকে।”

মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন যে, অন্যায় করলে দলে কোন স্থান নেই। তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের, নেতা-নেত্রীদের স্পষ্ট তিনি জানিয়ে দিলেন, কাজের মানুষদের তিনি ভালোভাবে দেখবেন। কাজ না করে দলে থাকা, তাঁর পছন্দ নয়, এমনটাও স্পষ্ট করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিলেন যে, যারা অন্যায়ের সঙ্গে জড়িত, তাঁদের কিন্তু দল পছন্দ করছে না। তাঁরা যদি মনে করেন যে, দলে তাঁরা থাকতে চান না। সে ক্ষেত্রেও মুখ্যমন্ত্রীর আপত্তি নেই, তাঁর বক্তব্যে তিনি তা স্পষ্ট করে দিলেন।

এককথায় দুর্নীতি যে কোনভাবেই বরদাস্ত নয়, অন্যায় কাজকে কোনভাবেই সমর্থন করা হবে না, সে কথাই স্পষ্ট করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত, নিয়োগ দুর্নীতিতে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর নাম জড়িয়ে যাবার পর যেভাবে তৃণমূলকে কোণঠাসা করতে শুরু করেছে একাধিক বিরোধী শিবির। সেই পরিস্থিতিতে দলের প্রতি বিশেষ বক্তব্য রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্য ইঙ্গিত করছে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীকে। দলের প্রতি এই ধরনের বক্তব্য রাখার মাধ্যমে তাঁকেই বিশেষ বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী, এমনটাই দাবি অভিজ্ঞমহলের।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories