Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রাজীব গান্ধী হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্তকে ৩১ বছর পর মুক্তি ! নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

।। প্রথম কলকাতা ।।

ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী হত্যা মামলায় অন্যতম দোষী সাব্যস্ত ছিলেন এজি পেরারিভালান। সুপ্রিম কোর্ট প্রায় ৩১ বছর পর তাকে মুক্তির নির্দেশ দিল। পেরারিভালান যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত ছিলেন। তিনি জানিয়েছিলেন, তামিলনাড়ু সরকার তাকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু রাজ্যপাল তার ফাইলটি দীর্ঘসময়ের জন্য নিজের কাছে রাখার পর তারপর রাস্ট্রপতির কাছে পাঠান, যা সংবিধান বিরোধী। আপাতত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী বুধবার জেল থেকে মুক্তি পাবেন পেরারিভালান । এক্ষেত্রে সুপ্রিমকোর্টের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এই মামলায় দোষীসাব্যস্তকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে অনুচ্ছেদ ১৪২ নম্বর অনুযায়ী।

ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী হত্যা মামলায় প্রথমে পেরারিভালানকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। পরবর্তীকালে তা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে পরিণত করা হয়। ৩১ বছর ধরে জেলে থাকার পর তিনি বুধবার মুক্তি পেতে চলেছে। ১৯৯১ সালে যখন রাজীব গান্ধীকে হত্যা করা হয় তখন পেরারিভালান ছিলেন মাত্র ১৯ বছর বয়সী। তিনি রাজীব গান্ধী হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিলেন । এই হত্যাকাণ্ডের মূল ষড়যন্ত্রকারী ব্যক্তিকে তিনি ৯ ভোল্টের ব্যাটারি দিয়ে ছিলেন যা রাজীব গান্ধীকে হত্যা করার জন্য ব্যবহার করা হয়।

আদালতে তার দোষ প্রমাণিত হলে তাকে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছিল কিন্তু ২০১৪ সালে সেই সাজা লাঘব করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে পরিণত করা হয় । অবশেষে ২০২২ সালে মার্চ মাসে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তার জামিনের বিষয়টি নিয়ে। যদিও তার আগে ২০১৫ সালে তিনি তামিলনাড়ু সরকারের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা জানিয়ে একটি পিটিশন জানান। যার পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি বিবেচনা করে সুপ্রিম কোর্ট।

সুপ্রিম কোর্ট প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে এই বিষয়টি শুনেছে এবং পেরারিভালানের দায়ের করা পিটিশনে এএসজি, তামিলনাড়ু সরকারের পক্ষে উপস্থিত সিনিয়র আইনজীবী এবং আবেদনকারীর প্রতিনিধিত্বকারী সিনিয়র আইনজীবী গোপাল শঙ্করনারায়ণের যুক্তি শুনে তবেই দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তিকে মুক্তির আদেশ দিয়েছে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories