Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

স্বাস্থ্যসাথী ফেরালেই FIR, বাতিল হবে লাইসেন্স! কঠোর নিদান মমতার

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকার পরেও বঞ্চিত করা হচ্ছে চিকিৎসা পরিষেবা থেকে। কিন্তু রাজ্য সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী, স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে একটি পরিবারের বছরে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত চিকিৎসা পরিষেবা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পাবার কথা। কিন্তু, একাধিক বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিং হোমের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকা সত্ত্বেও ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে রোগীকে। যার ফলে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে বহু মানুষকে। চিকিৎসা না পেয়ে বিপদে পড়ছেন বহু মানুষ। আজ স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে রাজ্যের সরকারি, বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোম গুলিকে সতর্ক করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, স্বাস্থ্যসাথী কার্ড গ্রহণ না করলে এফআইআর দায়ের
করা হবে।

আজ পশ্চিম মেদিনীপুরে প্রশাসনিক বৈঠকে যোগদান করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। যেখানে জনপ্রতিনিধিরা তাঁকে জানান, রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বারবার নির্দেশ দেওয়ার পরও বহু হাসপাতাল, নার্সিংহোম স্বাস্থ্যসাথী কার্ড গ্রহণ করছে না। বিশেষ করে অস্ত্রোপচারের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দেখালে নানা রকম টালবাহানা করা হচ্ছে রোগীর পরিবারের সঙ্গে। কিন্তু সময়মতো অস্ত্রোপচার না হলে রোগীকে বাঁচানো সম্ভব হবে না। কখনো কখনো এমনও বলা হচ্ছে, কার্ড রিনিউ করাতে হবে। না হলে অপারেশন করা যাবে না। বেসরকারি হাসপাতালই নয়, অনেক সময় সরকারি হাসপাতালও এই ধরনের কাজ করছে।

জনপ্রতিনিধির মুখে একথা শুনার পরই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, “এসব ক্ষেত্রে থানায় এফআইআর দায়ের করতে হবে। থানাকেও গিয়ে ক্রসচেক করতে হবে, কেন চিকিৎসা হল না? কার্ডের উপর হেল্পলাইন নম্বর রয়েছে। তাতেও ফোন করে অভিযোগ জানাতে হবে। এই কার্ডের কোনও রিনিউয়াল করাতে হয় না। মিথ্যে বললে হাসপাতালের লাইসেন্স কেটে দেব। অবশ্যই অভিযোগ করবেন।” অর্থাৎ স্বাস্থ্য সাথী কার্ড ফিরিয়ে দিলে এবার কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories