Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

পল্লবীর চলে যাওয়ার জেরে আত্মহত্যা করতে চান রোহান? ইন্সটা পোস্ট নিয়ে জল্পনা

1 min read

।।  প্রথম কলকাতা ।।

রবিবার টেলি অভিনেত্রী পল্লবী দে-র মৃত্যু রহস্যকে ঘিরে ক্রমশই জটিল হচ্ছে তদন্ত। চলছে চুল চেরা বিশ্লেষণ। অনেকেরই দাবি এটা খুন। আর সেই খুনের আঙ্গুল উঠছে পল্লবীর বর্তমান প্রেমিক তথা লিভ-ইন পার্টনার সাগ্নিকের দিকে। তবে পল্লবীর জীবনে শুধু সাগ্নিক নয়। এর আগেও ছিল নানান সম্পর্ক। প্রাক্তন প্রেমিকার এমন মর্মান্তিক ঘটনায় শোকাহত রোহান। আর তার জেরেই নাকি আত্মহত্যা করতে চলেছেন তিনি!

আজ্ঞে না এই রোহান পল্লবীর প্রাক্তন প্রেমিক রোহান নয়। ইনি অভিনেতা রোহান ভট্টাচার্য।  সম্প্রতি অভিনেত্রী সৃজালের সাথে সম্পর্কের বিচ্ছেদ ঘটেছে যার। আর তার জেরেই কী আত্মহত্যার পথ খুঁজছেন অভিনেতা? এদিন রোহানের ইনস্টাগ্রাম স্টোরি যেন তারই ইঙ্গিতবাহক। কী লিখেছেন রোহান? রোহানের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে পোস্ট করা বিবৃতিতে লেখা, “আমি যাচ্ছি চলে। হয়তো কোনও দিন আর আসব না। তবে যেটুকু নিয়ে গেলাম তার প্রতিদান আমি দিতে পারব না।” অভিনেতার এমন পোস্ট দেখেই খানিক ভয় পেয়ে যায় টলিপাড়া। যদিও পরবর্তীকালে জানা যায়, বিবৃতিতে লেখা কবিতার লাইন গুলো শামসুর রহমানের লেখা একটি কবিতার অংশ।

একই সাথে তার এমন পোস্টের কারণ খুঁজতে গিয়ে জানা যায়, রোহানে এই পোস্ট সম্পূর্ণ ডেডিকেট করা পল্লবীকে। তার উদ্দেশ্যেই এই লাইন লেখা। গত সপ্তাহেই নাকি এনটি১ স্টুডিয়োয় ‘মন মানে না’-র সেটে আলাপ হয় তাঁর পল্লবীর সঙ্গে। নিজের হাসিখুশি স্বভাব দিয়ে নিমেষে পল্লবী জায়গা করে নিয়েছিল রোহনের মনে। সেই মেয়েটাই আর নেই, এটাই তাঁর বিশ্বাস হচ্ছে না।

একই সাথে ঘটনার বিষয়কে কেন্দ্র করেই রোহান জানান, এই পোস্ট এবং সৃজালের সাথে সম্পর্ক বিচ্ছেদের কোনো যোগই নেই। আর আত্মহত্যা করার তো কোনো প্রশ্নই আসে না! পুরনো সম্পর্কের আর কোনও পিছু টানও। বরং এখন খুব ব্যস্ত নানা ধরনের কাজ নিয়ে। সোমবার সারাদিন সেসব নিয়েই কেটেছে। একই সঙ্গে চলছে হইচই ওয়েব প্ল্যাটফর্মের নতুন কমেডি সিরিজের কাজ। যেখানে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা যাবে। একই সঙ্গে ছোট রোহান তথা পর্দার ‘দিপু’ জানান, বাবা না থাকায় মায়ের সব দায়িত্ব তাঁর। কিছু আত্মীয়কে দেখেন তিনি। এলাকার সব পথশিশুদের খাওয়ান। তাই এসব ভাবনা কখনোই তাঁর মাথায় আসে না।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories