Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ব্যাংকে ১৫ লক্ষ টাকা থাকা সত্ত্বেও আর্থিক কষ্টে ভুগছিলেন পল্লবী! তবে কি পুলিশি তদন্তে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করছে সাগ্নিক?

1 min read

।।  প্রথম কলকাতা ।।

গতকাল অর্থাৎ রবিবার সকালে টলিপাড়ায় নেমে এল বিষাদের ছায়া। গড়ফার ভাড়া ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছিল টলিউডের জনপ্রিয় টেলি অভিনেত্রী পল্লবী দে-র ঝুলন্ত দেহ। প্রাথমিক তদন্তে জানা যায়, সেই ফ্ল্যাটেই গত দেড় মাস ধরে প্রেমিক সাগ্নিকের সাথে লিভ-ইন সম্পর্কে ছিলেন পল্লবী। তবে তার এই আকস্মিক মৃত্যুতে প্রশ্ন উঠছে আত্মহত্যা নাকি খুন? অভিনেত্রীর পরিবার সূত্রে দাবি, খুন করা হয়েছে ও আত্মহত্যা করতে পারে না। আর তাই গড়ফা থানায় ইতিমধ্যে অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে পরিবার। কিন্তু এদিকে আবার ময়না তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট বলছে আত্মহত্যা করেছেন অভিনেত্রী।

যদিও তার কারণ খুঁজতে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে তদন্ত। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে অভিনেত্রীর লিভ-ইন পার্টনার সাগ্নিককে। আর সেই সূত্রেই সাগ্নিক জানান, রবিবার ঘটনা ঘটা কালীন সময়ে সকালে সিগারেট খেতে এসে বাইরে গিয়েছিলেন তিনি। তার পর ফিরে দেখেন দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকতেই তিনি পল্লবীর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান।”

একই সাথে পুলিশকে সাগ্নিক জানান, বেশ কিছুদিন ধরেই মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন পল্লবী। বর্তমানে ‘মন মানে না’ ধারাবাহিকে কাজ করছিলেন তিনি। কিন্তু জানা যায় সেটি কিছুদিনের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু হাতে নতুন কোনো কাজ না থাকায় চিন্তায় ছিলেন অভিনেত্রী। অনেক EMI দিতে হয় মাসে। সেগুলো কীভাবে দেবেন তাই নিয়েই বেশ কিছুদিন ধরে অবসাদে ভুগছিলেন তিনি।

অথচ তদন্তে এও জানা যায়, সাগ্নিক এবং পল্লবীর ছিল জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট। আর সেখানেই ছিল ১৫ লক্ষ টাকা। সাথে চলছিল ধারাবাহিকের কাজ। এর পরেও কিসের অবসাদ। আর কিসেরই বা আর্থিক সমস্যা। উঠছে প্রশ্ন। একই সাথে প্রশ্ন উঠছে তাহলে কী পুলিশি তদন্তে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করার জন্যই কী এই কাজ করছেন সাগ্নিক? নাকি এমন মন্তব্যের পেছনে রয়েছে অন্য রহস্য। বলবে সময়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories