Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

এই ৫ লক্ষণ বলে দেবে আপনার সন্তান বুদ্ধিমান ! জানুন বিশদে

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

বর্তমান দিনে বহু বাবা-মা রয়েছেন যারা নিজেদের সন্তানকে একদম প্রথম সারিতে দেখতে চান। বেশিরভাগ বাবা-মা চেষ্টা করেন , তাদের সন্তান যেন বুদ্ধিমান হয়। তাই বিশেষভাবে নজর দেন সন্তানের খাবারের তালিকা এবং বিভিন্ন ধরনের অনুশীলনের প্রতি। যদিও বিষয়টি নিয়ে খুব একটা চিন্তার কিছু নেই, কোন শিশু যদি মেধাবী হয় সেক্ষেত্রে বড় হলে তার মেধার লক্ষণ গুলি প্রকাশ্যে আসবে। অনেক সময় আবার সুযোগ এবং চর্চার অভাবে বহু শিশুর সৃজনশীলতার দিকগুলি প্রকাশ পায় না। আজকের প্রতিবেদনে এমন কয়েকটি লক্ষ্মণের কথা জানবেন যা দেখে আগাম বুঝতে পারবেন আপনার সন্তান ভবিষ্যতে বুদ্ধিমান হবে।

•বিশেষ করে যেসব শিশুরা জিনিয়াস হয় তারা পরিবেশে যে কোন পরিবর্তন হলেই দ্রুত সংবেদনশীল হয়ে পড়ে। অধিকাংশ শিশু তাদের আশপাশের পরিবেশে থাকা মানুষদের দেখতে বা নানান ধরনের জিনিস দেখতে ব্যস্ত থাকে , কিন্তু বুদ্ধিমান শিশুরা তাদের সাথে কথা বলা ব্যক্তিদের চোখে চোখ রাখে এবং নানান শব্দ করে প্রতিক্রিয়া জানায়।

•বহু শিশু আছে যারা একটু খেলনা বা রঙিন জিনিস পেলেই খুশি। সেই সব জিনিস নিয়েই সারাদিন কাটিয়ে দেয়, কিন্তু বুদ্ধিমান শিশুরা খেলা করার পাশাপাশি পাজেল সলভ করা, রং করা প্রভৃতি কাজে যুক্ত থাকে। এই শিশুরা নিজেদের বয়সের থেকে একটু বেশি বয়সী বাচ্চাদের সঙ্গে খেলতে ভালোবাসে। এছাড়াও বুদ্ধিমান শিশুদের বন্ধুর সংখ্যা তুলনামূলকভাবে একটু কম থাকে।

•বহু বাচ্চা আছে যারা কোনো কিছুর জন্য বায়না করলে তা যদি না পায় সে ক্ষেত্রে জেদ দেখায়, কিন্তু বুদ্ধিমান শিশুদের ক্ষেত্রে তারা যা চায় তারা তা অর্জন করেই ছাড়ে । শুধু তাই নয়, নিজেদের কথার মাধ্যমে বড়দের থেকে সম্মতি আদায় করে।

•অনেক সময় দেখা যায় বহু বাচ্চা বয়স অনুযায়ী আর পাঁচটা বাচ্চার মত কথা বলে না । খুব সুন্দর ভাবে গুছিয়ে কথা বলতে শিখে যায়, পাশাপাশি নিজের মনের মত কাল্পনিক বন্ধু বানিয়ে তাদের সাথে খেলাধুলা করে। পড়াশোনার প্রতি মনোযোগী হয়। এক্ষেত্রে অনেক অভিভাবক চিন্তিত হয়ে পড়েন, ভাবেন সন্তান হয়ত বানিয়ে বানিয়ে কথা বলছে, কিন্তু এক্ষেত্রে ভয়ের কিছু নেই । কারণ বুদ্ধিমান শিশুরা একটু কল্পনা প্রবণ হয়ে থাকে আর এই কল্পনার জগত শিশুদের মানসিক বিকাশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

•আপনার বাচ্চা বুদ্ধিমান কিনা সে ক্ষেত্রে তার কথাবার্তায় এবং আবেগ প্রবণতা দেখে সহজেই বুঝতে পারবেন। যদি ১৪ মাস বয়সের পর থেকেই আপনার শিশু আধো আধো কথা বলতে শিখে যায় এবং গল্প শোনার প্রতি আগ্রহ দেখায় তাহলে তা বুদ্ধিমানের একটি লক্ষণ।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories