Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

পঞ্চায়েত অফিস ঘিরে রেখেছেন উপপ্রধান, ঢুকতে পারছেন না প্রধান খোদ! হুগলিতে ধুন্ধুমার

।। প্রথম কলকাতা।।

পঞ্চায়েত প্রধানকে অফিসে ঢুকতে দিচ্ছেন না উপপ্রধান। কয়েকজন দুষ্কৃতী নিয়ে পঞ্চায়েতের দখল নিয়েছেন তৃণমূলের উপপ্রধান। বিজেপির পক্ষ থেকেও এমন অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে হুগলির পোলবার আকনা গ্রাম পঞ্চায়েতে। পঞ্চায়েত প্রধান অভিযোগ করেছেন, তাঁকে অফিসে ঢুকতে দিচ্ছেন না উপপ্রধান। দুষ্কৃতী নিয়ে পঞ্চায়েত দখল করে রেখেছেন তিনি।

পঞ্চায়েত প্রধান কেকা গায়েন জানান, “উপ প্রধান নির্মলেন্দু ঘোষ আন্ডারস্ট্যান্ডিং হচ্ছে না বলে আমাকে ঢুকতে দিচ্ছেন না পঞ্চায়েতে গত ৮,৯ মাস ধরে। উনি বলেছেন, আমি যেখানে বলবো সেখানে সই করতে হবে। উনি যা বলবেন আমাকে তাই করতে হবে। ওনার ইচ্ছেমত আমাকে চলতে হবে। আমি ওনার কথা শুনিনি বলেই করা হচ্ছে। পঞ্চায়েতে গেলে কিছু লোকজনকে মদ খাইয়ে সেখানে ঢুকিয়ে দিচ্ছেন। আমাকে হাত ধরে টেনে বাইরে বের করে দিচ্ছে। আমি বাড়ি থেকেই সব কাজ করছি। সব জায়গায় জানিয়েছি, বিডিওকে বারবার জানিয়েছি। কিন্তু তাঁরা কিছুই করেননি।”

পঞ্চায়েত সদস্য সীমা মুখোপাধ্যায় জানান, বিডিও আসবেন বলে জানানো হয়েছিল শুক্রবার। কিন্তু প্রবেশ করতে গেলেই দেখা যায় উপপ্রধান দলবল নিয়ে চারদিক থেকে ঘিরে রেখেছেন। জোর করে তাঁদের সই করতে বলেছিলেন। তাঁরা তাতে অস্বীকার করেন। এরপর জোর করে সই করিয়ে নেওয়া হয়েছে। তারপর তাঁদের চলে যেতে বলা হয়েছে। একজন রাজি না হওয়ায় তাঁকে কলার ধরে বাইরে বের করে দেওয়া হয়েছে। তাঁকেও ঠেলে ফেলে দেওয়া হয়েছে।

বিজেপির পঞ্চায়েত সদস্য হীরা মাঝি জানান, কিছু দুষ্কৃতী নিয়ে বসে থাকেন উপ প্রধান। কোন সদস্য তৃণমূল হোক বা বিজেপি, সেখানেই গেলেই তাঁদের উপর হামলা হয়। পঞ্চায়েতে ঢুকতে পারেন না। এতদিন ধরে কোন টেন্ডার হয়নি। যতদিন তিনি হতে প্রধান হতে পারছেন না, ততদিন কাজ করতে দেবেন না।

তৃণমূলের রাজ্য কমিটির সদস্য তথা প্রাক্তন জেলা সভাপতি দিলীপ যাদব জানান, বিষয়টি তাঁদের কানে এসেছে। পঞ্চায়েত উপপ্রধানের বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে সমাধান করবেন। দলীয় ও প্রশাসনিক ক্ষেত্রে সমস্যার সমাধান করা হবে। এ বিষয়ে কোন প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি অভিযুক্ত উপপ্রধান নির্মলেন্দু ঘোষকে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories