Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

মায়ের সাপোর্টে অভিনয়ে, এখন গর্ব করতেন বাবাও, এক নজরে পল্লবীর বেড়ে ওঠার কথা

1 min read

।।  প্রথম কলকাতা ।।

প্রাণবন্ত একটি মেয়ে। হঠাৎই তাঁর মৃত্যু। তাও আবার অস্বাভাবিক রহস্য মৃত্যু। কথা হচ্ছে ‘আমি সিরাজের বেগম’ খ্যাত অভিনেত্রী পল্লবী দে কে নিয়ে। রবিবার গড়ফার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছে অভিনেত্রীর ঝুলন্ত দেহ। আত্মহত্যা নাকি খুন? প্রশ্ন উঠলেও ময়না তদন্ত বলছে এটা সম্পূর্ণ আত্মহত্যা। তবে তা মানতে নারাজ অভিনেত্রীর পরিবার সহ তাঁর সহকর্মীরা। ঠিকই তো যে মেয়ে এতটা প্রানবন্ত, চঞ্চল, হাসিখুশি সে কিভাবে আত্মহত্যা করতে পারে উঠছে প্রশ্ন। আর তাঁর সাথে সাথে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরে বেড়াচ্ছে তাঁর দিদি নাম্বার ওয়ানে মায়ের সাথে আসার সেই ভিডিও। যেখানে রয়েছে পল্লবীর ছোট থেকে বড় হয়ে ওঠার গল্প। রয়েছে অভিয়ে আসার জার্নি।

সেখানেই মজার আড্ডায় পল্লবীর মায়ের থেকে উঠে এসেছিলো অভিনেত্রীর জীবনের অজানা কিছু কথা। ছোট থেকে কেমন পল্লবী? মায়ের উত্তরে জানা যায়, ছোট থেকেই খুব চঞ্চল প্রকৃতির পল্লবী। পড়াশোনায় মোটামোটি ভালোই ছিল। তবে স্কুল থেকে আসতো বহু রিপোর্ট। যদিও সেই স্কুলের ম্যাডামরাই এখন পল্লবীকে নিয়ে গর্ব করে।

পল্লবীর অভিনয়ে আসা কীভাবে?

রচনার প্রশ্নের উত্তরে পল্লবী জানায়, ছোট থেকেই নাচ করতে ভালোবাসতেন অভিনেত্রী। সেখান থেকেই পরবর্তীকালে অভিনয়ে আসা। একই সাথে জানান, বাবার সেভাবে সাপোর্ট না থাকলেও মায়ের সাপোর্ট ছাড়া অভিনয়ে আসা সম্ভব ছিলোনা তাঁর। তবে এখন সবটা দেখার পর বাবাও ভীষণ গর্বিত। সকলকে ডেকে ডেকে আমার ধারাবাহিক দেখতে বলে। যা আমার কাছে বড় আমার প্রাপ্তি।

জীবনে মনের মানুষ কে?

এদিন নানান কথার মাঝে রচনা এড়ায়নি এই কথাও। পল্লবীর জীবনের স্পেশাল মানুষ কে জানতে চাওয়ায় মায়ের সোজাসাপটা উত্তর না এখনো কিছু না জানালেও এর আগে বহু প্রেম এসেছে ওর জীবনে। কিন্তু কোনোটাই সেভাবে বেশিদিন টেকেনি। কিন্তু কেন? উত্তরে উঠে এসেছিলো পল্লবীর খিটখিটে-জেদি স্বভাব। কিন্তু এই লড়াকু জেদি মনেভাবের মেয়ে আজ হার মানলো জীবনে। কেন সেটাই এখন ভাবচ্ছে সমগ্র বিনোদন জগৎ সহ তাঁর অনুরাগীদের।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories