Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বৈদ্যুতিক গাড়ি কেনার সামর্থ নেই? আপনার স্বপ্ন পূরণ করবে সরকার, মিলবে আর্থিক সাহায্য

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

বিশ্বজুড়ে বৈদ্যুতিক গাড়ির চাহিদা বাড়লেও একজন নিম্ন আয়ের মানুষের কাছে এই গাড়ি কার্যত স্বপ্ন। এর প্রধান কারণ বৈদ্যুতিক গাড়ির আকাশছোঁয়া দাম। বর্তমানে পেট্রোল-ডিজেল চালিত গাড়ি কিনতে গেলে যেই টাকা খরচ তার প্রায় ৫০ শতাংশ কিংবা দ্বিগুণ বেশি দাম দিতে হয় বিদ্যুৎ চালিত গাড়ির ক্ষেত্রে। বিশেষজ্ঞদের মতে, এটি যেহেতু প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে তাই এই রকম দাম বহন করতে হচ্ছে গ্রাহকদের।

কিন্তু তা সত্ত্বেও বহু মানুষ রয়েছেন যারা বৈদ্যুতিক গাড়ি ব্যবহার করতে চান কিন্তু সামর্থ না থাকায় পেরে উঠছেন না। এই সকল নিম্ন আয় মধ্যবিত্ত মানুষদের জন্য একটি নতুন প্রকল্প ঘোষণা করেছে নিউজিল্যান্ড। জেসিন্ডা আরডার্ন এর সরকার জানিয়েছে, তারা একটি ‘স্ক্র্যাপ অ্যান্ড রিপ্লেস’ স্কিম নিয়ে এসেছে। এই স্কিমের অধীনে আড়াই হাজার নিম্ন আয়ের পরিবারদের আর্থিক সাহায্য করা হবে যাতে তারা তাদের পেট্রোল-ডিজেল গাড়ি বদলে নতুন বৈদ্যুতিক গাড়ি কিনতে পারেন।

নিউজিল্যান্ডের পরিবহন মন্ত্রী মাইকেল উড বলেন, ২০৩৫ সালের মধ্যে গোটা দেশে একটিও জ্বালানি চালিত গাড়ি থাকবে না। শুধু ধনী ব্যক্তিরা যে বৈদ্যুতিক গাড়ি চড়বে তা নয়, মধ্যবিত্ত-গরিবরাও যাতে এই গাড়ি কিনতে পারে সেই সুযোগ করে দিতে চাই আমরা। জ্বালানি চালিত গাড়ি হ্রাস এবং বিদ্যুৎ চালিত গাড়ি বৃদ্ধির জন্য যে পরিকল্পনা নিয়েছে নিউজিল্যান্ড তার জন্য ১.৮ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করা হয়েছে।

২০২১ সালে নিউজিল্যান্ড সরকার কতৃক ঘোষিত ‘ক্লিন কার প্রোগ্রামের’ আওয়াতায় নতুন যারা বৈদ্যুতিক গাড়ি কিনবেন তাদের ৮,৬২৫ নিউজিল্যান্ড ডলার এবং পুরোনো বৈদ্যুতিক গাড়িতে ৩,৪৫০ নিউজিল্যান্ড ডলার ভর্তুকি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এই দেশের সরকার।

নিউজিল্যান্ডের এমন সিদ্ধান্তে সকলেই সাধুবাদ জানিয়েছেন। পরিবেশ-দূষণ রোধে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ বলে মনে করছেন তারা। নিউজিল্যান্ডে ICE (গ্যাস, ডিজেল) চালিত গাড়ির দাম বিদ্যুৎ চালিত গাড়ির তুলনায় প্রায় তিন গুণ। তাই অনেকেই এই গাড়ি কিনে উঠতে পারেন না। তবে উপরোক্ত স্কিমগুলির সাহায্যে বিদ্যুৎ চালিত গাড়ি কিনতে অনেকটা উৎসাহ পাবেন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Categories