Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

মহিলাকে অস্ত্রের কোপ মারার চেষ্টা, অভিযুক্ত ভিলেজ পুলিশ-সিভিক ভলেন্টিয়ার

।। প্রথম কলকাতা।।

এক মহিলাকে মারতে ধারালো অস্ত্র নিয়ে চড়াও হল এক ভিলেজ পুলিশ এবং তাঁর ভাই, যিনি পেশায় সিভিক ভলেন্টিয়ার । এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়ায় মালদার মানিকচক থানার অন্তর্গত এনায়েতপুরে। জানা যায় জমি দখলকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে বচসা বাঁধে । তারপর দফায় দফায় সংঘর্ষ। প্রথমে ভিলেজ পুলিশ এবং সিভিক ভলেন্টিয়ার এক মহিলা এবং তাঁর ভাইকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারতে উদ্যত হয়। পরবর্তীতে নিজেদের প্রাণ বাঁচাতে তাঁরাও বাঁশ দিয়ে বেধড়ক পেটায় ওই ভিলেজ পুলিশ এবং সিভিক ভলেন্টিয়ারকে।

খাইরুল এবং শহিদুল দুজনেই এনায়েতপুরের বাসিন্দা। খাইরুল পেশায় ভিলেজ পুলিশ এবং শহিদুল সিভিক ভলেন্টিয়ার এর কাজ করে। তাঁরা প্রতিবেশী সাজমা বেওয়া এবং তাঁর ভাই এর উপরে হামলা চালায়, কারণ গতকাল তাঁরা তাদের জমি মেপে তা ঘিরে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ। রীতিমতো উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়।

প্রথমত, খাইরুল এবং শহিদুল হাঁসুয়া নিয়ে সাজমা বেওয়া ও তাঁর ভাইকে মারতে যায়। পরে তাঁরা এবং তাদের পরিবার খাইরুল ও শহিদুলকে বাঁশ দিয়ে ব্যাপক মারধর করে। যার জেরে দুজনেই গুরুতর আহত হন। দুজনের বিরুদ্ধে বর্তমানে মানিকচক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন সাজমা । অন্যদিকে, জলপাইগুড়ির ধূপগুড়ি ব্লকের গাদং ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝাড়শালবাড়ি এলাকায় জমিসংক্রান্ত বিবাদ ঘিরে দুই পরিবারের মধ্যে তুমুল অশান্তি বাঁধে। এই ঘটনায় একজনের মৃত্যু পর্যন্ত হয়েছে বলে জানা যায় । গতকাল বিকেলে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিবাদ চরমে পৌঁছায়। আর তারপর লাঠি, রড, কোদাল নিয়ে এক পক্ষ আরেক পক্ষের উপর হামলা চালায় বলে জানা যায়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories