Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ঠিক কী ঘটেছিল! পল্লবী মৃত্যুর কিনারা করতে প্রেমিকের ফোন বাজেয়াপ্ত করল পুলিশ

1 min read

।।  প্রথম কলকাতা ।।

রবিবার সকাল সকাল টলিপাড়ায় নেমে এল বিষাদের ছায়া। কারণ ‘আমিই সিরাজের বেগম’ খ্যাত অভিনেত্রী ‘পল্লবী দে’র মৃত্যু। তবে এ মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। রবিবার অভিনেত্রীর গড়ফার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছে তার ঝুলন্ত দেহ। তড়িঘড়ি এম আর বাঙুর হাসপাতালে পাঠানো হলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। তবে অভিনেত্রীর এমন অস্বাভাবিক রহস্য মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে প্রশ্ন উঠছে আত্মহত্যা নাকি খুন? যদিও অভিনেত্রীর পরিবার সূত্রে দাবি, খুন করা হয়েছে ও আত্মহত্যা করতে পারে না। আর তাই গড়ফা থানায় ইতিমধ্যে অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে পরিবার। সেই মতোই চলছে পুলিশি তদন্ত। আর তাতেই উঠে আসছে একের পর এক চঞ্চল্যকর তথ্য।

এদিন পুলিশ সূত্রে খবর, গত দেড় মাস ধরে গড়ফার এক আবাসনের ফ্ল্যাটে প্রেমিক সাগ্নিকের সাথেই লিভ-ইন সম্পর্কে থাকতেন অভিনেত্রী। এর আগে থাকতেন হাওড়ায়। পুলিশি জেরায় এদিন সাগ্নিক জানান, রবিবার সকালে সিগারেট খেতে এসে বাইরে গিয়েছিলেন তিনি। তার পর ফিরে দেখেন দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকতেই তিনি পল্লবীর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। এর পরই পুলিশে খবর দেন তিনি। তবে শুধু মৌখিক কথা নয়, ইতিমধ্যে সাগ্নিকের ফোন বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ।

একই সাথে জানা যায়, সাগ্নিকের সাথে প্রেমের সম্পর্কের আগেও একাধিক সম্পর্কে জড়িয়েছেন অভিনেত্রী। তবে বর্তমান প্রেমিক সাগ্নিকের সাথে তার সম্পর্কের মেয়াদ এক বছর। এদিন পল্লবীর ঘনিষ্ট বন্ধু যিনি নিজেও একজন অভিনেত্রী জানিয়েছেন, “দুদিন আগেও সব ঠিক ছিল। একসাথে সিনেমাও দেখতে গিয়েছিলেন তাঁরা। তবে শোনা যাচ্ছে এর মধ্যে প্রেমিকের সাথে ঝামেলাও হয়েছিল তার।”

তবে প্রেমিকের সাথে ঝগড়ার কারণেই পল্লবী নিজেকে শেষ করে দেওয়ার মতো সিদ্ধান্ত নিলেন! নাকি এর পেছনে রয়েছে অন্য কোনো রহস্য খতিয়ে দেখছে পুলিশ। প্রেমিক সাগ্নিককে সে বিষয়ে জেরা করছে গড়ফা থানা। এই মুহূর্তে বাঙুল হাসপাতালেই রয়েছে অভিনেত্রীর নিথর দেহ।

‘আমি সিরাজের বেগম’ ধারাবাহিকে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছিলো পল্লবীকে। অভিনয় করতেন লুৎফার চরিত্রে। এছাড়াও ‘রেশম ঝাঁপি’ ও ‘কুঞ্জ ছায়া’ নামক ধারাবাহিকেও অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাকে। বর্তমানে ‘মন মানে না’ নামক একটি ধারাবাহিকে অভিনয় করছিলেন অভিনেত্রী। আর তার মৃত্যুতেই কার্যত শোকে পাথর প্রিয়জনেরা। হাসপাতাল চত্তরে বাড়ছে ভীড়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories