Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

এবারও ভাঙতে হবে আরও দুটি ঘর, বউবাজার নিয়ে ত্রিপাক্ষিক বৈঠক

।। প্রথম কলকাতা।।

২০১৯ এর আতঙ্ক ফের ফিরে এসেছে বউবাজারের। সে সময়ে একাধিক বাড়িতে দেখা গিয়েছিল ফাটল। ২৩ টি ঘর ভেঙে ফেলা হয়েছিল। এবার শোনা যাচ্ছে দুর্গা পিতুরি লেনের আরো দুটি বাড়ি ভেঙে দিতে হবে। কেএমআরসিএলের এই নির্দেশের পরই ক্ষোভ বাড়ছে স্থানীয় মানুষের। এই পরিস্থিতিতে বিধায়ক, সাংসদ, কাউন্সিলর, কেএমআরসিএলের আধিকারিক ও বাড়ির বাসিন্দাদের নিয়ে চললো ত্রিপাক্ষিক বৈঠক।

বউবাজারের দুর্গা পিতুরি লেনের আরও দুটি ঘর ভেঙে দিতে হবে বলে জানালো কেএমআরসিএল। গত ২০১৯ সালে ২৩ টি ঘর ভেঙে দিয়েছিল কেএমআরসিএল। জানা যাচ্ছে, এবার আরও দুটি ঘর ভাঙতে হব। কেএমআরসিএলের এমডি চন্দনেশ্বর নাথ ঝা এ প্রসঙ্গে জানালেন, আরও দুটি ঘর চিহ্নিত করা হয়েছে। যেগুলো ভেঙে দিতে হবে। বাকি ঘরগুলির ব্যাপারে রিপোর্ট আনার পর জানা যাবে, আর কোন ঘর ভাঙতে হবে কিনা?

ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে কেএমআরসিএলের আধিকারিক, সাংসদ, বিধায়ক, কাউন্সিলর, সাধারণ মানুষ সকলেই উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে বলা হয় ১৬, ১৬/১ বাড়ি ভাঙ্গা হবে। তবে সম্পূর্ণ? না অংশবিশেষ ভাঙ্গা হবে? সবকিছু নিয়ে বৈঠকে আলোচনা চলে। ফাটলের পর থেকেই বউবাজার মেট্রো প্রকল্পের কাজ বন্ধ রয়েছে।

বৈঠকে আলোচনা চলে, এই পুরোনো বাড়িগুলির ভবিষ্যৎ কী? আর কোন বাড়ি ভাঙতে হবে কিনা? বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়, কাউন্সিলর, স্থানীয় মানুষেরা। অনেকেই জানিয়েছেন, বিভিন্ন সময় তাদের অসুবিধা হচ্ছে। বিভিন্ন জায়গায় গিয়েও সমাধান হচ্ছে না। এরপর তাদের জন্য একটি গ্রিভেন্স সেল খোলার ঘোষণা করা হল। সেখানে তারা অভিযোগ জানাতে পারবেন।

তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানালেন,”দরকার হলে আপনারা যোগাযোগ করতে কুণ্ঠাবোধ করবেন না। ভারতবর্ষের পার্লামেন্ট পর্যন্ত গিয়ে আমি এই ঘটনার কথা বলব।” আবার, কলকাতা পুরসভা ও মেট্রোরেলের একটি বৈঠকে হলো। যেখানে স্থির হলো, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে একটি সার্ভে করা হবে। যেখানে দেখা হবে পুরনো বাড়িগুলোর ভবিষ্যৎ কি? সেগুলো মেরামত করা যাবে? নাকি ভেঙে দিতে হবে?

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories