Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

শহরে টাওয়ার বসানোর নামে প্রতারণা, ভুয়ো কলসেন্টার থেকে গ্রেফতার ৯

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

মানুষকে সর্বশান্ত করার একের পর এক পন্থা উদ্ভাবন করছে প্রতারকেরা। ফোন করে এটিএম কার্ডের নম্বর জেনে নিয়ে অ্যাকাউন্ট থেকে যেমন টাকা হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে। তেমনি সম্প্রতি শুরু হয়েছে আরেক জালিয়াতি, যেখানে টাওয়ার বসানোর নাম করে মোটা টাকার প্রলোভন দেখিয়ে চলছে প্রতারণা। জালিয়াতির ফাঁদে পা দিয়ে অনেকেই প্রতারিত হচ্ছেন। শেক্সপিয়ার সরণিতে এক ভুয়ো কল সেন্টার এই কারবার চলতো। সেখান থেকে ৯ জন সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। যারা প্রতারণা করত মূলত উত্তর ভারতের মানুষদের।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে, শেক্সপিয়ার সরণির এই ভুয়ো কল সেন্টারে হানা দেয় পুলিশ। লালবাজারের গুন্ডা দমন শাখা এই অভিযান চালায়। অভিযানে গ্রেপ্তার ৯ জন। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে ২ টি ল্যাপটপ, ৯ টি মোবাইল, ২ টি ল্যান্ডফোন সহ বেশকিছু নথি। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সাইবার ক্রাইম থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদের ফাঁদে পা দিয়েছিলেন বহু মানুষ। একাধিক অভিযোগ এসেছে। এরপর পুলিশ সক্রিয় হয়।

এই প্রতারকরা বিভিন্ন নামী মোবাইল নেটওয়ার্ক সংস্থার নাম করে সাধারণ মানুষের মোবাইলে ফোন করতো। নিজেদের কোন একটি নেটওয়ার্ক সংস্থার কর্মী বলে পরিচয় দিত। যেখানে বলা হতো, জমি বা বাড়ির ছাদে টাওয়ার বসানোর অনুমতি দিলেই পাওয়া যাবে বিপুল অর্থ। সিকিউরিটি মানি হিসেবে লক্ষ লক্ষ টাকা পাওয়া যাবে, এছাড়া প্রতি মাসে প্রচুর টাকা ভাড়া পাওয়া যাবে, টাওয়ার পরিচালনার জন্য আরও কয়েক হাজার টাকা দেওয়া হবে। কেউ রাজি হলে কোন সংস্থার লোগো, বিভিন্ন ভুয়ো কাগজপত্র পাঠানো হত, ভুয়ো চুক্তিপত্রে সই করানো হতো।

এরপর নো অবজেকশন রিপোর্ট ও অন্যান্য খরচের নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়া হতো। মানুষের বিশ্বাস আনার জন্য সিকিউরিটি মানির বিরাট অংকের ভুয়ো ডিমান্ড ড্রাফ্ট পর্যন্ত পাঠানো হতো। জানানো হত, ৪-৫ লক্ষ টাকা দেওয়ার কিছুদিনের মধ্যেই তার কাছে চলে যাবে ১৩ – ১৫ লক্ষ টাকা। নানা প্রলোভন এভাবেই বহু মানুষকে ঠকিয়ে সর্বস্বান্ত করে দিত এই প্রতারকেরা।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories