Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

মমতাকে চিঠি দিয়ে জিটিএ নির্বাচনের বিরোধিতা গুরুং-এর, আবার কী দাবি উঠবে গোর্খাল্যান্ডের?

।। প্রথম কলকাতা।।

পাহাড়ে দ্রুত ভোট করাতে চাইছে রাজ্য সরকার। বর্ষা নেমে আসার আগেই জিটিএ নির্বাচন করাতে চাইছে রাজ্য কারণ। দীর্ঘ সময় ধরে জিটিএ নির্বাচন বন্ধ। গত মার্চ মাসে পাহাড়ে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, অতি দ্রুততার সঙ্গে জিটিএ নির্বাচনে তিনি করাতে চান। এরপর আগামী জুন মাসেই জিটিএ নির্বাচন করার প্রস্তাব দিয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে। কিন্তু এবার জিটিএ নির্বাচন বিষয়ে হঠাৎ বেঁকে বসলেন বিমল গুরুং। জিটিএ নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক সমাধান চাইলেন তিনি। চিঠি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে বিমল গুরুং জানিয়েছেন। তিনি তৃণমূলের সঙ্গে জোট করেছেন, কিন্তু পাহাড়ের এগারটি গোর্খা জনগোষ্ঠীকে যতক্ষণ না তপশিলি জাতির তকমা দেওয়া হচ্ছে, ততক্ষণ সমাধান সম্ভব নয়। দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে স্থায়ী সমাধানের পর নির্বাচন করা হোক। বিমল গুরুং আরও জানিয়েছেন, এগারটি গোর্খা জনগোষ্ঠীকে তপশিলি জাতির তকমা না দেওয়া প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ হিসেবে ধরা হবে। এছাড়া এই চিঠিতে ২০১১ সালের চুক্তি অনুযায়ী স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান চেয়ে আরো বেশি ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবি করেছেন তিনি। আবার উত্তরবঙ্গের ৩৯৬ টি মোর্চাকে জিটিএর অধীনে আনার দাবি করেছেন তিনি।

গত ২০১৭ সালে জিটিএ নির্বাচনের বিরোধিতা করেছিলেন বিমল গুরুং। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, তাঁরা পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্য চান। সে সময়ে নির্বাচন আটকে গিয়েছিল। এরপর সময় অনেকটা বদলেছে। বিজেপির সঙ্গ ছেড়ে তৃণমূলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হয়েছেন তিনি। তবে, এবার আবার তিনি জিটিএ নির্বাচনের বিরোধিতা করে জানালেন, রাজ্য সরকার যে সমস্ত ক্ষমতা জিটিএর হাতে তুলে দেওয়ার কথা বলেছিল, তার অধিকাংশই এখনো তুলে দেওয়া হয়নি। সেই ক্ষমতা আগে জিটিএর হাতে তুলে দেওয়া হোক। তারপর নির্বাচন করা হোক। তাঁর এই দাবী থেকে অনেকেই মনে করছেন, তিনি ঘুরিয়ে ফের গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে সরব হলেন।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories